শুক্রবার   ১৮ অক্টোবর ২০১৯   কার্তিক ২ ১৪২৬   ১৮ সফর ১৪৪১

রাণীনগরে ছিনতাইকারী চক্রের চারসদস্যকে ভ্রাম্যমাণ আদালতে জেল

নিজস্ব প্রতিবেদক

নওগাঁ দর্পন

প্রকাশিত : ০৮:২৭ পিএম, ৭ অক্টোবর ২০১৯ সোমবার

নওগাঁর রাণীনগরে ছিনতাইকারী চক্রের চার সদস্যকে এক মাস করে জেল প্রদান করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা।

সাজাপ্রাপ্ত সদস্যরা হলেন পাবনা জেলার বেড়া উপজেলার সনদাপাড়া গ্রামের মৃত-মোজাহার প্রামাণিকের ছেলে রফিকুল ইসলাম (৪৫), একই উপজেলার দড়পায়শা গ্রামের মৃত আবু মোল্লার ছেলে সিদ্দিক মোল্লা (৪০), বড়গয়না গ্রামের জবেদ মোল্লার ছেলে আশরাফ আলী (৫০) ও জগন্নাতপুর গ্রামের সোনাউল্লাহর ছেলে মোস্তাক (৫৬)।

প্রত্যক্ষদর্শী স্থানীয় ইউপি মেম্বার গোলাম মোস্তফা জানান, সোমবার সকালে উপজেলার বেলোবাড়ি গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক আবু জাফর মাস্টার উপজেলার সোনালী ব্যাংক টিটিডিসি শাখাহতে তার অবসরভাতা উত্তোলন করে বাড়ি ফিরছিলেন। এমন সময় ব্যাংক চত্বরে শিক্ষকের শরীরে মানুষের মল ছিটিয়ে অবসরভাতার ১৬হাজার ৪শত টাকা ছিনতাই করে নিয়ে যাচ্ছিল এই ছিনতাইকারীচক্র।

টাকা ছিনতাই করে নিয়ে যাবার সময় চার সদস্য চলমান ভ্যানগাড়ীর উপর টাকা ভাগ-বাটোয়রা করছিলো। এমন সময় ঘটনাটি তিনি দেখতে পেয়ে সন্দেহ হলে তাদের কে আটক করে। এসময় তাদের কাছে বিভিন্ন কৌটায় রাখা মানুষের মল পাওয়া যায়। তার কিছু পরেই জানা যায় যে তারা আবু জাফর মাস্টারের টাকা ছিনতাই করে নিয়ে যাচ্ছিলো।

এরপর স্থানীয় জনগন তাদেরকে আটক করে করে নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে সোর্পদ করে।

তিনি আরো জানান, এই ছিনতাইকারী চক্র এর আগেও এই উপজেলায় মানুষের শরীরেমল ছিটিয়ে এরকম বেশ কয়েকটি ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটিয়েছে কিন্তু তখন তাদেরকে আটক করা যায়নি।ভ্রা

ম্যমাণ আদালতের বিচারক ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আল মামুন বলেন, স্থাণীয় জনগন ছিনতাইকারী দলের এই চার সদস্যকে আটক করে আমার কাছে নিয়ে আসে। আমি তাদের প্রত্যককে একমাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করে দুপুরে জেল হাজতে প্রেরন করেছি। আর উদ্ধারকৃত টাকা অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক আবু জাফরের কাছে হস্তান্তর করেছি।