শনিবার   ২৩ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ৮ ১৪২৬   ২৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

সাপাহারে সরকারি কলেজে ছুটির দিনে লক্ষাধিক টাকার গাছ কর্তন

নিজস্ব প্রতিবেদক

নওগাঁ দর্পন

প্রকাশিত : ০৫:২২ পিএম, ৬ অক্টোবর ২০১৯ রোববার

দুর্গাপুজার দীর্ঘ কয়েকদিনের ছুটির সুযুগকে কাজে লাগিয়ে সাপাহার সরকারী ডিগ্রীকলেজ ক্যাম্পাসের মধ্যে অবস্থিত দু’টি বিশালাকৃতিরইউকেলিপটাস কেটে আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে।

জানা গেছে, চলতি হিন্দু সম্প্রদায়ের শারদীয় দুর্গা পুজার ছুটিরকারণে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কয়েকদিন ধরে বন্ধ থাকে। এই সুযুগেকলেজের অধ্যক্ষের অবর্তমানে কয়েকজন শিক্ষক কলেজে প্রবেশের গেট বন্ধকরে রবিবার বিকেলে ১৯৮০ দশকে কলেজ ক্যাম্পাসে রোপনকৃতবিশালাকৃতির দু’টি ইউক্যালিপটাস গাছ কেটে ফেলে (যার আনুমানিক মূল্য লক্ষাধিক টাকা) এর পর কর্তনকৃত গাছগুলিকে বাহিরে পাঠানোর জন্য ট্রলিতে লোড করে কলেজের মধ্যে রাখা হয়।

সংবাদ পেয়ে স্থানীয় কয়েকজন সাংবাদ কর্মী সেখানে গিয়েকৌশলে কলেজে প্রবেশের গেট খুলে ভিতরে প্রবেশ করলে এ দৃশ্য দেখতেপায়। এসময় মজিদুল ইসলাম নামের এক শিক্ষক সাংবাদিকদের দেখেগাছের ছবি তুলতে নিষেধ করে এবং গাছ দু;টি কলেজের উন্নয়নকাজে লাগানো হবে বলে জানান।

এলাকাবাসীর প্রশ্ন সরকারী কলেজেরউন্নয়নে সরকারই যথেষ্ট, সরাকারী সম্পত্তিতে থাকা যে কোন গাছকর্তনে সরকারী নিয়ম নিতী থাকলেও তার কোন তোয়াক্ক না করে কিউদ্দেশ্যে বৃহত বৃহত গুছগুলি কর্তন করা হলো এই প্রশ্ন এখন সদরের লোকজনের মুখে মুখে।

এ বিষয়ে কলেজের অধ্যক্ষ আলহাজ্ব মুজিবুর রহমানের সাথে বার বার মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে ফোনটি তিনি রিসিভ না করায় তার মতামত জানা সম্ভব হয়নি। এর পর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টাকরলে তিনি ছুটিতে থাকায় তার সাথেও যোগাযোগ করা যায়নি।শেষে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব শাহজাহান আলীর সাথেযোগাযোগ করা হলে তিনি বিষয়টি সম্পর্কে কিছুই জানেনা বলে জানান।

এবিষয়ে স্থানীয় থানায়ও কোন প্রকার অভিযোগ দায়েরহয়নি বলে অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আ: হাই নিউটন জানায়।সরকারী নিয়মনিতী না মেনে সরকারী প্রতিষ্ঠানের গাছ কর্তনকারয় বিষয়টি নিয়ে উপজেলা সদরের বিভিন্ন স্থানে নানা গুঞ্জন শুরুহয়েছে।