সোমবার   ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯   ভাদ্র ৩১ ১৪২৬   ১৬ মুহররম ১৪৪১

মাদার তেরেসা পদক পেলেন খাদ্যমন্ত্রীর কন্যা ও ভাতিজি

নিজস্ব প্রতিবেদক

নওগাঁ দর্পন

প্রকাশিত : ০৭:১২ পিএম, ২১ জুলাই ২০১৯ রোববার

সমাজসেবা ও মানবকল্যাণে অবদানের স্বীকৃতি মাদার তেঁরেসা পদকে ভূষিত খাদ্যমন্ত্রীর মেয়ে ও ভাতিজি বংশগতভাবে রক্তে যাদের জনসেবা মিশে আছে তারা নিজ নিজ জায়গা থেকে মানবতার কল্যাণে কাজ করে যাবেন সেটিই স্বাভাবিক। বলছি বর্তমান সরকারের অন্যতম জনপ্রিয় ও সফল খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদারের কন্যা ডাঃ কৃষ্ণা রাণী মজুমদার ও ভাতিজি রীনা মজুমদারের কথা।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) সহযোগী অধ্যাপক ডা. কৃষ্ণা রাণী মজুমদার ও যশোরের অভয়নগর উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা রীনা মজুমদার দুজনই নিজ নিজ পেশাগত জায়গা থেকে সমাজসেবা ও মানবকল্যাণে বিশেষ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ যথাক্রমে ২০১৮ ও ২০১৯ সালে মাদার তেঁরেসা পিস অ্যাওয়ার্ড ও মাদার তেঁরেসা স্বর্ণপদকে ভূষিত হয়েছেন।

ডাঃ কৃষ্ণা রাণী মজুমদার বর্তমান খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদারের মেঝো কন্যা। তবে নিজের কর্মদক্ষতা, সততা ও মানবসেবার অদম্য ইচ্ছার বদৌলতে বাবার পরিচয় চাপিয়ে বাংলাদেশের চিকিৎসা সেবায় ডাঃ কৃষ্ণা রাণী মজুমদার হয়ে উঠেছেন অনন্য। চিকিৎসা শাস্ত্রের পড়াশুনা শেষেই মানবতার অন্যতম নোবেল পেশা চিকিৎসাসেবায় নিজেকে আত্মনিয়োগ করেন তিনি।

বিভিন্ন জায়গায় চিকিৎসক হিসেবে কর্মরত থাকা অবস্থায় পেশাগত দায়িত্বের বাইরে গিয়েও বিনামূল্যে অসংখ্য মানুষকে সুচিকিৎসা প্রদান করেছেন ডাঃ কৃষ্ণা রাণী মজুমদার। ফলশ্রুতিতে মানুষের কাছে স্বীকৃতি পেয়েছেন একজন মানবদরদী সফল চিকিৎসক হিসেবে।

একজন সফল চিকিৎসক এবং মানবসেবায় বিশেষ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপই মূলত ২০১৮ সালে মাদার তেঁরেসা পিস অ্যাওয়ার্ড এ ভূষিত হয়েছেন ডাঃ কৃষ্ণা রাণী মজুমদার। রীনা মজুমদার। নারী অধিকার প্রতিষ্ঠা ও সমাজ উন্নয়নে নিরলস কাজ করে চলা এক নারীর নাম। টানা এক যুগ অভয়নগরবাসীর ভালোবাসায় নিজেকে জড়িয়ে দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি সমাজ উন্নয়ন ও নারী অধিকার প্রতিষ্ঠায় কাজ করে চলেছেন।

যিনি সরকারি কর্মকর্তা হওয়া সত্ত্বেও আমলাতান্ত্রিকতার উর্দ্ধে উঠে অসহায় সাধারণ ও নির্যাতিত নারীদের পাশে দাড়িয়ে তাদের অধিকার প্রতিষ্ঠায় অনন্য অবদান রেখে চলেছেন। দায়িত্বের গন্ডিতে নিজেকে আবদ্ধ না রেখে, অফিসের আরাম কেদারায় নিজের দায়িত্ব সীমাবদ্ধ না রেখে অভয়নগরের গ্রাম-গঞ্জে সাধারণ অসহায় নারীদের অবস্থা স্বচক্ষে পর্যবেক্ষন করতে ছুটে বেড়িয়েছেন।

আর যার স্বীকৃতি স্বরুপ ২০১৯ এর মাদার তেঁরেসা স্বর্ণপদকে ভুষিত হয়েছেন তিনি। পারিবারিকভাবে মানবসেবার যে ঐতিহ্য বর্তমান সরকারের খাদ্যমন্ত্রী সাধনচন্দ্র মজুমদারের রয়েছে তা ভবিষ্যতেও যে চলমান থাকবে এর প্রমাণ হলো তার মেয়ে ও ভাতিজির মানবসেবার স্বীকৃতি স্বরুপ মাদার তেরেসা পদক লাভ।

কোনো পদক কিংবা স্বীকৃতি লাভের আশায় মানবসেবা না করলেও এই স্বীকৃতি ডা. কৃষ্ণা রাণী মজুমদার ও রীনা মজুমদারকে মানবসেবায় নিজেদের আরো ব্যাপকহারে নিয়োজিত রাখতে প্রেরণা যোগাবে বলে জানান তাঁরা।