শুক্রবার   ১৫ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ১ ১৪২৬   ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

শ্রীলঙ্কা হামলায় নিহত বেড়ে ৩৫৯, তদন্তে ‘অগ্রগতি’

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

নওগাঁ দর্পন

প্রকাশিত : ১১:৩৮ এএম, ২৪ এপ্রিল ২০১৯ বুধবার

শ্রীলঙ্কার কয়েকটি চার্চ ও হোটেলে একযোগে চালানো আত্মঘাতী বোমা হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৩৫৯ জনে দাঁড়িয়েছে। বুধবার শ্রীলঙ্কা পুলিশের মুখপাত্র রুয়ান গুনাসেকেরা নিহতের সংখ্যা বৃদ্ধির কথা প্রকাশ করলেও বিস্তারিত আর কিছু জানাননি, খবর বার্তা সংস্থা রয়টার্সের।

রোববার ইস্টার পরবের দিন দেশটির তিনটি গির্জা ও চারটি হোটেলে আত্মঘাতী বোমা হামলা হয়। মঙ্গলবার পর্যন্ত নিহত ৩২১ জন ও আহত প্রায় ৫০০ জন ছিল।

মঙ্গলবার এ হামলায় দায় স্বীকার করেছে মধ্যপ্রাচ্যের জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট (আইএস) । আইএসের বার্তা সংস্থা আমাক সাত জঙ্গির নাম প্রকাশ করে এরাই আত্মঘাতী হামলাগুলো চালিয়েছে বলে জানিয়েছে।

গোষ্ঠীটি নিজেদের দাবির পক্ষে কোনো প্রমাণ দেয়নি। ‍তাদের দাবি যদি সত্য হয়ে থাকে তবে ইরাক ও সিরিয়ার বাইরে তাদের চালানো অন্যতম সবচেয়ে ভয়াবহ হামলা হবে এটি।

মঙ্গলবার রাতে শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট মাইথ্রিপালা সিরিসেনা ‘২৪ ঘণ্টার মধ্য’ প্রতিরক্ষা বাহিনীগুলোর প্রধানদের পরিবর্তন করার ঘোষণা দিয়েছেন।

তিনি জানিয়েছেন, হামলার আশঙ্কা প্রকাশ করে প্রতিবেদন দেওয়া হলেও সেগুলো তার সঙ্গে শেয়ার করা হয়নি, কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ‘কঠোর পদক্ষেপ’ নেওয়ার অঙ্গীকার করেছেন তিনি।

জাতির উদ্দেশ্যে দেওয়া ভাষণে তিনি বলেছেন, “আগামী সপ্তাহগুলোতে পুলিশ ও নিরাপত্তা বাহিনীগুলোকে ঢেলে সাজাবো। আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে প্রতিরক্ষা বাহিনীগুলোর প্রধানদের পরিবর্তন করতে চাই। 

“নিরাপত্তা কর্মকর্তারা বিদেশি একটি রাষ্ট্রের কাজ থেকে গোয়েন্দা প্রতিবেদন পাওয়ার পরও সেটি আমাকে জানাননি। এসব কর্মকর্তার বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।”

এক সংবাদ সম্মেলনে অপরাধীদের শনাক্ত করার পথে তদন্তের অগ্রগতি হওয়ার কথা জানিয়েছেন শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহে।

“আমরা আইএসের দাবি খতিয়ে দেখবো, আমাদের বিশ্বাস সম্ভবত কিছু সম্পর্ক আছে,” বলেছেন তিনি। 

অন্তত সাত আত্মঘাতী হামলাগুলো চালিয়েছে বলে জানিয়েছে শ্রীলঙ্কা সরকার।