শনিবার   ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আশ্বিন ৬ ১৪২৬   ২১ মুহররম ১৪৪১

সেনাবাহিনী নামায় এতো উৎসাহিত হওয়ার কিছু নেই

নওগাঁ দর্পন

প্রকাশিত : ১১:০৫ এএম, ২৫ ডিসেম্বর ২০১৮ মঙ্গলবার

আজ সোমবার তার নির্বাচনী এলাকা কবিরহাট উপজেলার কান্দিরপাড় ঈদগাহ ময়দান ও নুরু ব্যাপারীর হাট এলাকার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে পৃথক দুটি মহিলা সমাবেশের পথসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, দেশপ্রেমিক সেনাবাহিনী নির্বাচন কমিশনের নির্দেশনায় নির্বাচন কাজে সহায়তা করার জন্য মাঠে নেমেছে। তাদেরকে স্বাগত জানাই। তবে তাদের আসার খবরে কেউ উৎফুল্ল বা উৎসাহিত হবার কোনো কারণ নেই। তারা নির্বাচন কমিশনের নির্দেশ মোতাবেক তারা দায়িত্ব পালন করবে।

ওবায়দুল কাদের বিএনপিকে উদ্দেশ্য করে বলেন, তারা এখন নিজেরা নিজেদের উপর হামলা করে আমাদের উপর দোষ চাপায়। আমরা কোথাও কোনো গোলমাল করি না এবং করবোও না।

মওদুদ আহমেদের এক অভিযোগের জবাবে বলেন, তিনি নিজের গাড়ি বাড়িতে রেখে ভাড়া গাড়ি নিয়ে বের হয়, নিজেদের লোক দিয়ে হামলা করে গাড়ি ভেঙে আওয়ামী লীগের উপর দোষ চাপায়। তবুও নির্বাচন কমিশন এ ঘটনার তদন্ত করবে। যদি আওয়ামী লীগ বা সহযোগী সংগঠনের কোনো  লোক জড়িত থাকার প্রমাণ মেলে তাকে থানায় দেওয়া হবে।

নেতাকর্মীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, মনে রাখবেন সামনের তিনদিন ঐক্যফ্রন্ট বিএনপি অনেক উসকানি দেবে। তাদের উসকানির ফাঁদে পা দেবেন না। ভরা কলসি নড়ে না। আমাদের সাথে জনগণ আছে। এমন কোনো সুযোগ দিবেন না যার জন্য বিএনপি অজুহাত দেখিয়ে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়াতে পারে।

মন্ত্রী আরো বলেন, গত নির্বাচনের আগে যেসব ওয়াদা করেছিলাম তা পুরণ করেছি। এ এলাকায় শতভাগ বিদ্যুতায়ন হয়েছে। ডিজিটাল সুবিধা দেওয়ায় গ্রামগুলো শহর হয়ে গেছে। শেখ হাসিনা ওয়াদা করেছেন এবার ক্ষমতায় গেলে প্রত্যেক পরিবারের একজন বেকারকে চাকরি দেওয়া হবে। তিনি যা ওয়াদা করেন তা রক্ষা করেন।

তিনি স্থানীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্য করে বলেন, জেতার আগেই জিতে যেও না। ৩০ তারিখে ভোট শেষ হওয়া পর্যন্ত কেন্দ্র রক্ষা করবে, কারণ বিএনপি কেন্দ্র পাহারা দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, জনগণ ভুয়া প্রতিশ্রুতি বিশ্বাস করে না। মানুষ তাদের সাথে থাকে না। বিএনপি ২২ বছর ক্ষমতায় থেকে জনগণকে ধোঁকা দিয়েছে। তাদের উন্নয়ন বা ভাগ্য পরিবর্তনের জন্য কিছুই করেনি।

এ সময়ন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সুবর্ণচর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ খায়রুল আনম সেলিম, কবির হাট উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কামরুন নাহার শিউলি, উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি নুরুল আমিন রুমি, সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম রায়হানসহ আওয়ামী লীগ যুবলীগ ও ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।