সোমবার   ২৫ মে ২০২০   জ্যৈষ্ঠ ১০ ১৪২৭   ০২ শাওয়াল ১৪৪১

নওগাঁ দর্পন
২৪০

৫ কিমি. মধ্যে নেই কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ভোগান্তিতে শিক্ষার্থীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ৬ নভেম্বর ২০১৯  

ফাইল ছবি।

ফাইল ছবি।

নওগাঁর পত্নীতলায় হালিমনগর এলাকায় প্রাথমিক শিক্ষা হতে বঞ্চিত হচ্ছেন ৩ শতাধিক শিশু শিক্ষার্থী। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান স্থাপন করে শিক্ষার পরিবেশ সৃষ্টিতে সরকারসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন স্থানীয় সচেতন মহল।

সরেজমিন ঘুরে শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, উপজেলার ২নং নির্মইল ইউনিয়নের হালিমনগর গ্রামে প্রায় আড়াইশ পরিবারে ৪ শতাধিক সন্তান। তার মধ্যে প্রায় ৩ শতাধিক শিশু প্রাথমিক শিক্ষার্জনের জন্য উপযুক্ত হয়ে উঠেছে। ওই এলাকার প্রায় ৪-৫ কিলোমিটারের মধ্যে কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান না থাকার ফলে শিক্ষার্জন হতে যেমন বঞ্চিত হচ্ছে শিশুরা। ঠিক তেমনিভাবে এর চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে অভিভাবকদের।

বিশেষ করে বেশ কিছু শিশু শিক্ষার্জনের জন্য অন্য স্থানে স্থাপিত বিদ্যালয়গুলোতে গেলেও সময়মতো পৌঁছাতে পারে না শিশুরা। শিক্ষাবঞ্চিত শিশুরা দূরের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে হেঁটে শিক্ষার্জন করতে না যেতে পেরে অনেকে বই-খাতার বদলে হাতে বস্তা আর ঝাঁটা নিয়ে পাশের বাগান ও বনে যায় শুকনো পাতা কুড়ানোর জন্য। এতে জ্বালানির পাতা বিক্রয় করে দরিদ্র পরিবারের অনেকেই আর্থিকভাবে লাভবান হয়ে আসছেন।

অপরদিকে, নিরক্ষর পরিবারগুলো নিরক্ষর থেকে যাচ্ছে। ফলে শিক্ষা বঞ্চিত হচ্ছেন হালিমনগরের দরিদ্র পরিবারগুলো।

এমতাবস্থায় এলাকার সচেতন মহল, ওই এলাকার শিশুদের আগামীর ভবিষ্যৎ উজ্জ্বল নিশ্চিতকরণের জন্য হালিমনগরে একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় স্থাপন করার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও শিক্ষামন্ত্রীসহ সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট জোর দাবি জানিয়েছেন।

নির্মইল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ বলেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অভাবে বেশির ভাগ অভিভাবক নিরক্ষর। আবার সেই একই অভাবে বর্তমান সন্তানরাও কি নিরক্ষর থাকবে? তিনি আরও জানান, অনেক অভিভাবকেরা ছেলেমেয়েদের পড়ালেখা করার জন্য পার্শ্ববর্তী উপজেলা সাপাহার সদরে বাসা ভাড়া নিয়ে থাকেন।

পত্নীতলা উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার হাবিবুর রহমান জানান, হালিমনগরে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় স্থাপন করার মতো হলে এলাকাটি সরেজমিন তদন্তপূর্বক প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে।

পত্নীতলা উপজেলা নির্বাহী অফিসার লিটন সরকার জনান, চলতি মাসে এ উপজেলায় আমি যোগদান করি। বিষয়টি আমার জানা নাই। বর্তমান শিক্ষাবান্ধব সরকারের সময়েও এমন এলাকা থাকার কথা নয়। তিনি আরও জানান, বিষয়টি উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারের সঙ্গে কথা বলে জরুরিভাবে তদন্তপূর্বক সমস্যা সমাধান করা হবে।

নওগাঁ দর্পন
এই বিভাগের আরো খবর