সোমবার   ২৭ মে ২০১৯   জ্যৈষ্ঠ ১২ ১৪২৬   ২২ রমজান ১৪৪০

নওগাঁ দর্পন
৩০

২০ দলীয় জোটের বৈঠকে যোগ দেবেন পার্থ

ডেস্ক রিপোর্ট

প্রকাশিত: ৯ মে ২০১৯  

সদ্য ২০ দলীয় জোট ত্যাগ করা বাংলাদেশ জাতীয় পার্টির (বিজেপি) আন্দালিভ রহমান পার্থকে ফেরানোর উদ্যোগ নিয়েছে জোটের প্রধান শরিক বিএনপি। ইতোমধ্যে দলটির শীর্ষ নীতি নির্ধারকদের ফোন পেয়ে অভিমানের বরফ গলতে শুরু করেছে পার্থর। যোগ দেবেন জোটের পরবর্তী বৈঠকেও।

গত সোমবার (০৬ মে) বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট ছাড়ার ঘোষণা দেন বিজেপি'র চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার আন্দালিভ রহমান পার্থ। এর মধ্যদিয়ে তাদের দীর্ঘ ২০ বছরের রাজনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন হয়ে যায়। দলটি জানায়, জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট গঠিত হওয়ার পর থেকে ২০-দলীয় জোটের রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড ক্রমশই স্থবির এবং ঐক্যফ্রন্টমুখী হয়ে পড়েছে। ২০ দলের গুরুত্ব তাদের কাছে নেই। এছাড়া শপথ গ্রহণের মাধ্যমে ঐক্যফ্রন্ট ও বিএনপি ৩০ ডিসেম্বরের ‘প্রহসনের’ নির্বাচনকে প্রত্যাখ্যান করার নৈতিক অধিকার হারিয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, এতদিন শরিক দলগুলোর অভিযোগ ও ক্ষোভ আমলে না নিলেও পার্থ জোট ত্যাগের পর বিরোধ কমাতে আলোচনা শুরু করেছেন বিএনপির নীতিনির্ধারকরা। এ নিয়ে লন্ডনে অবস্থানরত ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সঙ্গে কথা বলেছেন দলের সিনিয়র এক নেতা। জোটের অভ্যন্তীরণ বিরোধ কমাতে দলের স্থায়ী কমিটির এক সদস্যকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। মান-অভিমান নিরসনে ওই নেতা ইতিমধ্যে জোটের কয়েকজন শীর্ষ নেতার সঙ্গে কথাও বলেছেন।

এরই মধ্যে বিএনপির স্থায়ী কমিটি সদস্য ও জোটের সমন্বয়ক নজরুল ইসলাম খানসহ বেশকয়েকজন সিনিয়র নেতা পার্থর সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলেছেন। আগামী কয়েক দিনের মধ্যে জোটের বৈঠক ডাকা হবে। নেতাদের অনুরোধে ২০ দলীয় জোটের আগামী বৈঠকে পার্থ উপস্থিত থাকারও কথা দিয়েছেন। তবে তিনি জোটে ফিরবেন কিনা এই মুহূর্তে বলা যাচ্ছে না।

এ বিষয়ে আন্দালিভ রহমান পার্থ বলেন, আমি আমার সিদ্ধান্তে অনড়। আমাকে জোটের সমন্বয়ক ফোন করেছিলেন। তাকেও আমি একই কথা বলেছি। তবে জোটের বৈঠকে যদি আমন্ত্রণ জানানো হয় বিজেপি একটি রাজনৈতিক দল হিসেবে যোগ দেবে। শুধু জোট নয়, কথা বলার জন্য আমার দলকে যে কেউ আমন্ত্রণ জানালে অবশ্যই দলের চেয়ারম্যান হিসেবে আমি যাব।

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, চলমান রাজনীতির দুঃসময় চলছে। এ সময় জোটভুক্ত অনেকের মধ্যে মান-অভিমান থাকতে পারে। বিশেষ করে বড় দল বিএনপি এবং জোটের আরও যারা নেতা আছেন তারা সবাই নিজ অবস্থান থেকে পদক্ষেপ নেবেন। এতে মান-অভিমান আর থাকবে না। বিজেপির ২০-দলীয় জোট থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পেছনে কাজ করেছে মান-অভিমান। অচিরেই এসব সেরে যাবে।

এদিকে বিএনপির একজন নীতিনির্ধারক বলেন, আন্দালিভ রহমান পার্থের বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি ২০-দলীয় জোট ছেড়ে যাওয়ার বিষয়ে বিএনপিকে আনুষ্ঠানিক কোনো চিঠি দেয়নি। তাই বিজেপি জোট ছেড়ে গেছে এটি আমরা বলতে চাই না। আমাদের ধারণা পার্থ হয়তো অভিমান করেছেন। আশা করছি তার অভিমান থাকবে না।

নওগাঁ দর্পন
নওগাঁ দর্পন
এই বিভাগের আরো খবর