ব্রেকিং:
পোরশার হাপানিয়া সীমান্ত থেকে সাত বাংলাদেশীকে আটক করেছে ভারতের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ

বৃহস্পতিবার   ২১ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ৭ ১৪২৬   ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

নওগাঁ দর্পন
সর্বশেষ:
ধামইরহাটের আগ্রাদ্বিগুন বাজারে সড়ক দুর্ঘটনায় ২ পুলিশ নিহত ধামইরহাটের গকুল গ্রাম থেকে গলায় ফাঁশ দেওয়া এক যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ পত্নীতলায় আদিবাসী প্রেমিক যুগলের লাশ উদ্ধার চাকুরির প্রলোভনে মান্দার মেয়েকে ঢাকায় ধর্ষণ বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বহরে যুক্ত হওয়া বোয়িং (৭৮৭-৮) ড্রিমলাইনার গাঙচিল উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ধামইরহাটে মাদক সেবনের দায়ে ৬ জনের জেল ও জরিমানা আত্রাইয়ে ডেঙ্গু সচেতনতা মূলক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় সাপাহারে পরিস্কার অভিযান সাপাহার ঐতিহ্যবাহী জবই বিলে মাছের পোনা অবমুক্ত আত্রাই থানা পুলিশের অভিযানে ৯জন আটক গ্রেনেড হামলার প্রতিবাদে নিয়ামতপুরে আলোচনা সভা সাপাহারের করল্যা চাষে বিপ্লব
৫৮৯

শেখ হাসিনা এবং নৌকায় সমৃদ্ধি দেখছেন দেশের সূর্য সন্তানেরা

প্রকাশিত: ২৭ নভেম্বর ২০১৮  

শীতের হাওয়ার সাথে পাল্লা দিয়ে দেশে বইতে শুরু করেছে  নির্বাচনী হাওয়া। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ইতোমধ্যেই ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। নির্বাচনকে সামনে রেখে দেশের বিভিন্ন শ্রেণীর মানুষ তাদের মতামত প্রকাশ করছে। এদের মধ্যে বুদ্ধিজীবী সচেতন  সমাজের আস্থা মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তি আওয়ামী লীগ তথা শেখ হাসিনাতেই। যার ফলশ্রুতিতে সশস্ত্র বাহিনীর দেড় শতাধিক অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আজ মঙ্গলবার গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে নৌকা  এবং ফুলের তোড়া তুলে  দিয়ে  মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তির সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করেছেন। এ দেশের সচেতন  শিক্ষিত বিবেকবান নাগরিকদের পছন্দের তালিকায় অপ্রতিদ্বন্দ্বী দেশরত্ন জননেত্রী শেখ হাসিনা।

আওয়ামী লীগের উন্নয়ন কর্মকান্ড  আর তার সাথে সাথে  জনসমর্থন বাড়ছে ক্রমান্বয়ে। আর এটা বুঝা যায়- সশস্ত্র বাহিনীর প্রায় দেড় শতাধিক অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আওয়ামী লীগে যোগদান পর্ব শেষ করার পর। তারা মনে করেন, মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের শক্তি এবং শেখ হাসিনার সরকারের মাধ্যমেই উন্নয়ন সম্ভব এবং দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য তারাও এই কর্মকান্ডে শরিক হতে চান।

 

সশস্ত্র বাহিনীর সাবেক ওই কর্মকর্তাদের মধ্যে ১০৯ জন সেনাবাহিনীর, ১৮ জন বিমান বাহিনীর এবং ১৯ জন নৌ বাহিনীর। সেনা কর্মকর্তাদের মধ্যে অবসরপ্রাপ্ত লেফটেন্যান্ট জেনারেল তিনজন, অবসরপ্রাপ্ত মেজর জেনারেল ১৮ জন, অবসরপ্রাপ্ত ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ১৯ জন, অবসরপ্রাপ্ত কর্নেল ৭ জন, অবসরপ্রাপ্ত লেফটেন্যান্ট কর্নেল ২০ জন। এছাড়াও অবসরপ্রাপ্ত মেজর রয়েছেন ৩৫ জন।

অবসরপ্রাপ্ত রিয়ার অ্যাডমিরাল ২ জন, অবসরপ্রাপ্ত কমডোর ৭ জন, অবসরপ্রাপ্ত ক্যাপ্টেন ৬ জন, অবসরপ্রাপ্ত লেফটেন্যান্ট কমান্ডার ১ জন, অবসরপ্রাপ্ত ই ক্যাপ্টেন ৩ জন, সহ আরও ১৮ জন বিমানবাহিনীর কর্মকর্তাও রয়েছেন।

 

দেশের মেধাবী, সূর্য সন্তানেরা যখন একটি রাজনৈতিক দলের উপর আস্থা রাখেন, তখন এটা সহজেই অনুমেয়- কতটা জনপ্রিয় একটি রাজনৈতিক দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ। দেশের স্বাধীনতার সূত্রপাত  যেই দলকে ঘিরে, সেই আওয়ামী লীগেই আস্থা খুঁজে পেয়েছে দেশের সচেতন মহল। আর তাই আসন্ন নির্বাচনকে সামনে রেখে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ এবং দেশরত্ন শেখ হাসিনার জয়ের বিকল্প দেখছেন না সচেতন রাজনৈতিক মহল। দেশের মানুষের এমন ভালোবাসায় সিক্ত প্রধানমন্ত্রীও এ সময়ে দেশকে আরো এগিয়ে নেওয়ার প্রত্যয় পুনর্ব্যক্ত করেন।   

গণভবনে এই অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলির সদস্য সাবেক সেনা কর্মকর্তা মো. ফারুক খান, যুগ্ম সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, আবদুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম উপস্থিত ছিলেন।    

 

 

 

নওগাঁ দর্পন
নওগাঁ দর্পন
এই বিভাগের আরো খবর