ব্রেকিং:
পোরশার হাপানিয়া সীমান্ত থেকে সাত বাংলাদেশীকে আটক করেছে ভারতের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ

রোববার   ১৭ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ৩ ১৪২৬   ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

নওগাঁ দর্পন
সর্বশেষ:
ধামইরহাটের আগ্রাদ্বিগুন বাজারে সড়ক দুর্ঘটনায় ২ পুলিশ নিহত ধামইরহাটের গকুল গ্রাম থেকে গলায় ফাঁশ দেওয়া এক যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ পত্নীতলায় আদিবাসী প্রেমিক যুগলের লাশ উদ্ধার চাকুরির প্রলোভনে মান্দার মেয়েকে ঢাকায় ধর্ষণ বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বহরে যুক্ত হওয়া বোয়িং (৭৮৭-৮) ড্রিমলাইনার গাঙচিল উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ধামইরহাটে মাদক সেবনের দায়ে ৬ জনের জেল ও জরিমানা আত্রাইয়ে ডেঙ্গু সচেতনতা মূলক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় সাপাহারে পরিস্কার অভিযান সাপাহার ঐতিহ্যবাহী জবই বিলে মাছের পোনা অবমুক্ত আত্রাই থানা পুলিশের অভিযানে ৯জন আটক গ্রেনেড হামলার প্রতিবাদে নিয়ামতপুরে আলোচনা সভা সাপাহারের করল্যা চাষে বিপ্লব
৭৯

শর্ত সাপেক্ষে রোহিঙ্গাদের নাগরিকত্ব দিতে চায় মিয়ানমার

ডেস্ক নিউজ

প্রকাশিত: ২৯ জুলাই ২০১৯  

মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর গণহত্যা, ধর্ষণসহ নানা নির্যাতনের মুখে পালিয়ে এসে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়ে ১২ লাখের অধিক রোহিঙ্গা। রাখাইন প্রদেশের এই অধিবাসীদের ফিরিয়ে নিতে গড়িমসি করছে বার্মা সরকার।  আন্তর্জাতিক চাপের মুখে নানা কৌশল নিয়েছে সামরিক বাহিনীর শাসিত দেশটির সরকার। চাপের মুখে দীর্ঘ দিন পর দেশটির একটি প্রতিনিধ দল এসেছে রোহিঙ্গাদের দেখতে। 

রোববার বিকেলে কক্সবাজারের উখিয়ায় কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন ও রোহিঙ্গা নেতাদের সঙ্গে বৈঠক শেষে দেশটির পররাষ্ট্র সচিব মিন্ট থোয়ে জানালেন, শর্ত স্বাপেক্ষে রোহিঙ্গাদের নাগরিকত্ব দিতে রাজি আছে মিয়ানমার।

কী সেই শর্ত?

মিয়ানমার প্রতিনিধি দলের নেতা ও দেশটির পররাষ্ট্র সচিব মিন্ট থোয়ে বলেন, রোহিঙ্গাদের আমরা নাগরিকত্ব দিতে প্রস্তুত। ১৯৮২ সালের মিয়ানমারের আইন অনুযায়ী প্রত্যেককে নাগরিকত্ব দেয়া হবে। এছাড়াও যারা দাদা, মা ও সন্তান এই তিনের অবস্থানের প্রমাণ দিতে পারবে, তাদের নাগরিকত্ব দেয়া হবে। একইভাবে ন্যাশনাল ভ্যারিফিকেশন কার্ড (এনভিসি) অনুযায়ী যারা কাগজপত্র দেখাতে পারবে, তাদেরও নাগরিকত্ব দেয়া হবে।

তিনি আরো বলেন, দুই দিন ধরে একাধিক বৈঠকে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের জন্য মিয়ানমারের প্রস্তুতি সম্পর্কে রোহিঙ্গাদের অবহিত করা হয়েছে। একই সঙ্গে তিন দফার বৈঠকে রোহিঙ্গাদের দাবিগুলো জানা গেছে। প্রত্যাবাসনের ক্ষেত্রে মিয়ানমার নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে তিন ক্ষেত্রে আলোচনা করার। রোহিঙ্গাদের সঙ্গে যে আলোচনা হয়েছে, তা আবারও হবে। একই সঙ্গে আসিয়ানের প্রতিনিধিদের সঙ্গেও আলোচনা হবে। মার্চ মাসে দেয়া আসিয়ানের রোহিঙ্গা সংক্রান্ত প্রস্তাবনা বিবেচনা করা হবে।

মিয়ানমারের পররাষ্ট্র সচিব আরো বলেন, প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়ায় দুই পক্ষের আলোচনার মধ্যে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। ঢাকায় ফিরে আন্তর্জাতিক সংস্থার প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠকের পাশাপাশি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এ সংক্রান্ত বৈঠক হবে।

এর আগে, দ্বিতীয় দিনের মতো মিয়ানমারের প্রতিনিধি দলটি রোববার সকালে কুতুপালং ৪ নম্বর ক্যাম্পে যায়। টানা ২ ঘণ্টার বেশি সময় ধরে বৈঠকে প্রতিনিধিদের কাছে নিজেদের নানা দাবির কথা জানান রোহিঙ্গারা।

মিয়ানমারের পররাষ্ট্র সচিব মিন্ট থোয়ের নেতৃত্বে ১৫ সদস্যের প্রতিনিধি দল শনিবার কক্সবাজার পৌঁছায়। উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন এবং রোহিঙ্গাদের ৪০ জনের একটি দলের সঙ্গে দ্বিতীয় দফায় আলাপ আলোচনা করেন তারা।

নওগাঁ দর্পন
নওগাঁ দর্পন
এই বিভাগের আরো খবর