ব্রেকিং:
পল্লী নিবাসে চিরনিদ্রায় এরশাদ বিশ্ব ক্রিকেটে ইতিহাস সেরা ফাইনালের চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড

বুধবার   ১৭ জুলাই ২০১৯   শ্রাবণ ১ ১৪২৬   ১৪ জ্বিলকদ ১৪৪০

নওগাঁ দর্পন
সর্বশেষ:
আত্রাই নদীর পানি বিপদসীমা অতিক্রম করেছে সাপাহারে গ্রামীন জনপদের অবহেলিত রাস্তা ধান সংগ্রহে ডিসিদের কার্যক্রম জোরদারের নির্দেশ খাদ্যমন্ত্রীর সাপাহারে জমে উঠেছে চারাগাছের মৌসুমী হাট জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মোহাম্মদ এরশাদ মারা গেছেন ধোনির কেঁদে কেঁদে মাঠ ছাড়ার ভিডিও ভাইরাল পরিদর্শনে গিয়ে রোহিঙ্গাদের ফিরে যাওয়ার আকুতি শুনলেন বান কি মুন আজ বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ রাখার দায়ে সৈয়দপুরে ৫ ফার্মেসিকে জরিমানা দেশের সব জেলায় হাইটেক পার্ক নির্মাণ করা হবে: প্রতিমন্ত্রী পলক পদ্মা সেতু নিয়ে গুজব রুখতে মাঠে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী বিক্রমপুর সুইটস ও ফুলকলিতে পচা দই বিক্রি, ৫০ হাজার টাকা জরিমানা আর দুইটি পিলার বাকি পদ্মা সেতুর নওগাঁর সাপাহারে নারী পুলিশদের নিয়ে ওরিয়েন্টেশন সভা অনুষ্ঠিত নওগাঁর পত্নীতলায় বিজিবি কর্তৃক গাঁজা উদ্ধার সারা এশিয়ার মধ্যে নারী ধূমপায়ীদের তালিকায় শীর্ষে এখন বাংলাদেশ এই প্রথম সরকারি খরচে হজে যাচ্ছেন ৫৫ ওলামা মাশায়েখ হজের মৌসুমে সৌদিতে অশ্লীল নাচের কনসার্ট বাতিল নওগাঁয় গাঁজাসহ দুই সহোদর আটক এস কে সিনহাসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা রোহিঙ্গারা যত দ্রুত নিজ দেশে ফিরে যাবে ততই মঙ্গল: প্রধানমন্ত্রী আত্রাই থানায় নতুন ওসির যোগদান বদলগাছীতে ফসলি জমির মাটি বিক্রির মহোৎসব রাণীনগরে দুটি স্কুলে সততা স্টোরের উদ্বোধন
৬১

শপথ নিয়ে সরকারের উপকার করেছে বিএনপি

সৈয়দ আবুল মকসুদ

প্রকাশিত: ৬ মে ২০১৯  

সংসদে যাওয়া না-যাওয়া সবকিছুর মূলেই এবারের নির্বাচনের ফলাফল। অকল্পনীয় বিজয় অর্জনের পর এই ফলাফল আওয়ামী লীগকে বিব্রত করেছে। বিএনপিকে করেছে হতভম্ব। ভোটারদের করেছে তাজ্জব। রাজনৈতিক বিশ্নেষকদের করেছে বিভ্রান্ত। কোনো দলের হিসাবের যোগ-বিয়োগের সঙ্গেই ফলাফলের মিল নেই। শুধু নির্বাচন কমিশনকে এই ফলাফল করেছে পরিতৃপ্ত।

এবারের নির্বাচনে সবচেয়ে লাভবান যদি কেউ হয়ে থাকে তা হয়েছে ড. কামাল হোসেনের গণফোরাম। ফাঁকতালে তারা সংসদে দুটি আসন পেয়ে গেছে। আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টি এত আসন পাবে তা তাদের ধারণাতেও ছিল না। বিএনপির ঘোরবিরোধীরাও বলবে না যে, তারা মাত্র ছয়-সাতটি আসন পাওয়ার দল। আমাদের দেশে চিরকাল পরাজিত দল কারচুপির অভিযোগ তুলে নির্বাচনের ফলাফল  প্রত্যাখ্যান করেছে। কিন্তু এবারে বিএনপি নির্বাচনের ফলাফল প্রত্যাখ্যানের পেছনে সঙ্গত কারণ ছিল। কিন্তু সেই কারণগুলো তথ্য-প্রমাণ দিয়ে সুপ্রতিষ্ঠিত করতে পারেনি দলটি। নেতৃত্বহীন হলেও বিএনপি একটি বড় দল। কিন্তু অতি অসংগঠিত। তাদের যে ঐক্যফ্রন্ট তাতে ঐক্যের লেশমাত্র নেই। নির্বাচন কমিশন যে গুটিকয়েক আসন তাদের দিয়েছে, তাতে শপথ না নিয়ে তাদের উপায় ছিল না। শপথ নেবে না বলে যে ঘোষণা তারা দিয়েছিলেন, তা ছিল আসলে ফাঁকা বুলি। সরকার চাইছিল তারা সংসদে আসুক। যদিও তারা সংসদে না গেলে সরকারের কোনো ক্ষতি হতো না। কিন্তু রাজনৈতিক ও নৈতিক পরাজয় ঘটত। শপথ নিয়ে তারা সরকারের উপকার করেছেন, নিজেরাও উপকৃত হয়েছেন।

সরকারের চাপে বিএনপির নির্বাচিতরা শপথ নিয়েছেন, আমার তা মনে হয় না। তারা জনগণের কথা চিন্তা করে শপথ নিয়েছেন, এমনটাও ভাবার যুক্তিসঙ্গত কারণ নেই। বরং প্রলোভন থেকে শপথ নিতে পারেন। শুল্ক্কমুক্ত গাড়ি, রাজউকের প্লট প্রভৃতি সুবিধা তাদের শপথ নিতে উদ্বুদ্ধ করে থাকতে পারে। এই ছয় এমপির দ্বারা খালেদা জিয়াও যে উপকৃত হবেন, সেটাও দুরাশা। শপথ না নেওয়ার কারণে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ব্যক্তিগতভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হলেও তার নৈতিক পরাজয় ঘটেনি।

আগেই বলেছি বিএনপির কেউ যদি শপথ না নিত তাহলে সরকারের নৈতিক পরাজয় ঘটত। অন্যদিকে তারা শপথ নেওয়ার কারণে বিএনপি এবং ঐক্যফ্রন্টের রাজনৈতিক পরাজয় ঘটেছে। এতদিন যারা তাকে অবৈধ বলেছেন, শপথ নেওয়ার মাধ্যমে সেটাকেই বৈধতা দিলেন। এটা বিএনপির রাজনৈতিক দেউলিয়াপনা ছাড়া আর কিছুই নয়।

লেখক : সাংবাদিক ও রাজনৈতিক বিশ্নেষক 

নওগাঁ দর্পন
নওগাঁ দর্পন
এই বিভাগের আরো খবর