সোমবার   ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯   ভাদ্র ৩১ ১৪২৬   ১৬ মুহররম ১৪৪১

নওগাঁ দর্পন
সর্বশেষ:
পত্নীতলায় আদিবাসী প্রেমিক যুগলের লাশ উদ্ধার চাকুরির প্রলোভনে মান্দার মেয়েকে ঢাকায় ধর্ষণ বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বহরে যুক্ত হওয়া বোয়িং (৭৮৭-৮) ড্রিমলাইনার গাঙচিল উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ধামইরহাটে মাদক সেবনের দায়ে ৬ জনের জেল ও জরিমানা আত্রাইয়ে ডেঙ্গু সচেতনতা মূলক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় সাপাহারে পরিস্কার অভিযান সাপাহার ঐতিহ্যবাহী জবই বিলে মাছের পোনা অবমুক্ত আত্রাই থানা পুলিশের অভিযানে ৯জন আটক গ্রেনেড হামলার প্রতিবাদে নিয়ামতপুরে আলোচনা সভা সাপাহারের করল্যা চাষে বিপ্লব
৪২

মাশরাফি রাজি থাকলে সেপ্টেম্বরেই বিদায়ের আয়োজন!

ডেস্ক নিউজ

প্রকাশিত: ১৬ আগস্ট ২০১৯  

আরও অনেকের মতো বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডও অপেক্ষায় ছিল বিশ্বকাপেই মাশরাফি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে গুডবাই জানাবেন। ৫ জুলাই পাকিস্তানের বিপক্ষে বিশ্বকাপে লর্ডসে ছিল বাংলাদেশের শেষ ম্যাচ। কিন্তু সেই ম্যাচ হয়ে গেলো। মাশরাফি ক্রিকেট থেকে বিদায়ের কোনো ঘোষণা দিলেন না।

বিসিবি’র অপেক্ষাও আরেকটু বাড়ল!

তবে এবার বিসিবি অপেক্ষার প্রহরটা ভাঙ্গতে চায়। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে গুডবাই জানানোর জন্য মাশরাফির ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত কি- সে সম্পর্কে দ্রুতই একটা উপসংহার চায় বিসিবি।

এমনকি মাশরাফির জন্য বিদায় ম্যাচের একটা আয়োজনের প্রাথমিক পরিকল্পনাও করে ফেলেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। সম্ভাব্য সেই বিদায় ম্যাচ সেপ্টেম্বরে! মাশরাফি যদি সম্মত থাকেন তাহলে বিসিবি আগামী মাসেই তাকে বিদায়ের মানপত্র তৈরি করবে। তিন জাতি টি-টুয়েন্টি সিরিজে অংশ নিতে জিম্বাবুয়ে আগামী মাসে বাংলাদেশ সফরে আসছে। সেই সিরিজ শেষে বিসিবি জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে একটি আন্তর্জাতিক ওয়ানডে ম্যাচের আয়োজন করতে চায়। যেটা হবে মাশরাফির বিদায় ম্যাচ।

তবে প্রাথমিক এই পরিকল্পনার সবচেয়ে বড় শর্ত হলো- মাশরাফি কি চান? তিনি কি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে এখনই বিদায় বলতে রাজি কিনা? মাশরাফি যদি হ্যাঁ বলেন তাহলে বিসিবি সেপ্টেম্বরে তার বিদায় ম্যাচের জন্য ‘ঝাঁপিয়ে’ পড়বে। আর যদি মাশরাফি না বলেন তাহলে সব পরিকল্পনা বাতিল!

মাশরাফির সঙ্গে এখন দ্রুত এই বিষয়ে কথা বলতে চাইছে বিসিবি। বৃহস্পতিবার দুপুরে মিরপুরে বিসিবি কার্যালয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদৎ বার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত কাঙ্গালি ভোজ বিতরণের পর বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন সাংবাদিকদের এই তথ্য জানান-‘এই বিষয়ে মাশরাফির কাছ থেকে একটা সিদ্ধান্ত চাইবে বিসিবি। আমরা সেই অপেক্ষায় আছি।’

মাশরাফি বছর কয়েক আগে আন্তর্জাতিক টি-টুয়েন্টি থেকে অবসর নিয়েছেন। জাতীয় দলের হয়ে তিনি শুধুমাত্র ওয়ানডে ক্রিকেট খেলেন। টেস্ট ক্রিকেটে সর্বশেষ খেলেছেন ২০০৯ সালে। পাঁচদিনের টেস্ট ম্যাচ খেলার মতো ফিটনেস সঙ্কট আছে তার। তাছাড়া টেস্ট ম্যাচে তাকে ঘিরে নির্বাচকদের কোনো পরিকল্পনাও নেই। সেই সূত্রে বলা যেতে পারে-জীবনের শেষ টেস্ট ম্যাচও মাশরাফি খেলেই ফেলেছেন!

চলতি বছর আন্তর্জাতিক সূচিতে বাংলাদেশের কোনো ওয়ানডে ম্যাচ নেই। সামনের বছর জুন মাসের আগে বাংলাদেশের কোনো ওয়ানডে ম্যাচে খেলার সম্ভাবনাও খুবই ক্ষীণ। মাশরাফির সঙ্গে বিসিবির বার্ষিক চুক্তির মেয়াদ শেষ হবে ডিসেম্বরে। ‘এ’ প্লাস ক্যাটাগরিতে বিসিবির সঙ্গে মাশরাফি চুক্তিবদ্ধ আছেন। মাশরাফির সঙ্গে সেই চুক্তি বাড়ানোর ব্যাপারেও বিসিবি খুব একটা আগ্রহী নয়।

মাঠে দুর্বল পারফরমেন্স। রাজনীতিতে ক্রমশ ব্যস্ত হয়ে পড়া। এবং সামনের বিশ্বকাপ নিয়ে নতুন অধিনায়কের নেতৃত্ব বিকশিত হওয়ার সুযোগ করে দেয়া-ইত্যাদি আনুষঙ্গিকতাকে এজেন্ডা হিসেবে রেখে বিসিবি আগামী দিনের ক্রিকেটে জাতীয় দলে মাশরাফির কোনো জায়গা দেখছে না।

তবে বাংলাদেশ ক্রিকেটে মাশরাফির অবদান নিয়ে কৃতজ্ঞ বিসিবি।

নওগাঁ দর্পন
নওগাঁ দর্পন
এই বিভাগের আরো খবর