সোমবার   ২৭ জানুয়ারি ২০২০   মাঘ ১৩ ১৪২৬   ০১ জমাদিউস সানি ১৪৪১

নওগাঁ দর্পন
২০০

মান্দায় চুরির অপবাদে হত্যা করে অপমৃত্যু বলে প্রচার!

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৯ আগস্ট ২০১৯  

নওগাঁর মান্দায় ব্যাটারি চুরির অপবাদ দিয়ে তহিরউদ্দিন (৪০) নামে এক ব্যক্তিকে হত্যার পর অপমৃত্যু বলে চালিয়ে দেয়ারঅভিযোগ উঠেছে। নিহত তহির উদ্দিন উপজেলার চক-কুসুম্বা গ্রামের লালমোহাম্মদের ছেলে। আজ সোমবার সকালে নিহতের বাড়ির উত্তর পার্শ্বে রাকিবনার্সারী থেকে মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়।

স্থানীয় ও নিহতের পরিবার সূত্রে জানা গেছে, গত দু’দিন আগে একইগ্রামের মৃত আকবরের ছেলে সুলতান মাহমুদ রায়হানের ট্রাক্টরের ব্যাটারিকে.কে বিক্স নামক ইটভাটা থেকে চুরি যায়। ব্যাটারি চুরি সন্দেহে তহিরউদ্দিনকে বিভিন্ন ভাবে খোঁজাখুঁজি শুরু করে ট্রাক্টর মালিকের লোকজনকলিম, আব্দুল মালেক এবং ময়নুলসহ কয়েকজন।

রোববার রাতে তহির উদ্দিন তারনাতীকে প্রসাদপুর বাজারের ফয়সাল ক্লিনিকে দেখতে যান। সেখান থেকেরাত ১০টার দিকে বাড়ি ফেরার পথে কলিম, আব্দুল মালেক এবং ময়নুলসহকয়েকজন তাকে থামতে বলা হলে দৌড় দেয় তহির উদ্দিন। এরপর থেকেই তিনিনিখোঁজ।

সকাল ৭টার দিকে নার্সারীতে শ্রমিকরা কাজ করতে গিয়েতহির উদ্দিনের মরদেহ পড়ে থাকতে দেখে থানা পুলিশে সংবাদ দেয়। নিহতেরপরিবারের দাবী তহির উদ্দিনকে হত্যা করা হয়েছে। নিহতের মা জরিনা বেওয়া অভিযোগ করে বলেন, ব্যাটারি হারানো পর কলিম,আব্দুল মালেক এবং ময়নুলসহ কয়েকজন আমার ছেলে তহির উদ্দিনকে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দিতে থাকে।

ক্লিনিক থেকে ছেলে বাড়ি ফেরার সময় তারাআটকের জন্য ধাওয়া করে। এরপর থেকেই ছেলে নিখোঁজ হয়। সকালে ছেলেরমৃত্যুর খবর পেয়ে ক্লিনিক থেকে বাড়ি আসি। আমার ছেলেকে অন্যায়ভাবেহত্যা করা হয়েছে। প্রভাবশালীরা এখন আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেয়ার চেষ্টাকরছেন বলে অভিযোগ করেন তিনি।

বিষয়টি তদন্তপূর্বক সুষ্ঠু বিচারেরদাবী করেন তিনি।নিহতের স্ত্রী লাইলী, মেয়ে মুক্তা এবং বোন কহিনুর বলেন, ব্যাটারি হারানোপর সন্দেহমূলক ভাবে স্থানীয় কুসুম্বা ইউপি সদস্য শাহিনুর রোববারবাড়িতে এসে ব্যাটারিটি মৃত আকবরের বাড়িতে অথবা তার হেফাজতেদিয়ে আসার জন্য বলে যান।

কিন্তু রাতেই যে এমন ঘটনা ঘটবে কে জানত।ট্রাক্টরের মালিক মৃত আকবরের ছেলে সুলতান মাহমুদ রায়হান বলেন,ইটভাটায় রাখা ট্রাক্টরের একটি ব্যাটারি চুরি হয়ে যায়। এর আগেও একটিব্যাটারী চুরি হয়। আমাদের সন্দেহ তহির উদ্দিন এ কাজটি করে থাকতে পারে।রোববার এক দোকানদার তাকে ব্যাটারি মাথায় নিয়ে ঘুরতে দেখেছিলো।

এতে আমরা নিশ্চিত যে, ব্যাটারিটি সেই নিয়েছে। তাকে বার বার বলাহয়েছিল ব্যাটারি দিয়ে দেয়ার জন্য। ইতিপূর্বে ও তার বিরুদ্ধে মাদকসেবন, ব্যাটারি ও তেল চুরির ঘটনা আছে। কিন্তু কে বা কাহারা তাকে হত্যাকরেছে এ বিষয়ে আমরা কিছুই জানি না।

মান্দা থানার ওসি (তদন্ত) তারেকুর রহমান সরকার বলেন, লাশ উদ্ধার করেময়নাতদন্তের জন্য নওগাঁ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। নিহতেরশরীরে কোন আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি।

তহির উদ্দিন মাদক সেবন করত।তবে প্রাথমিক ভাবে ধারনা করা হচ্ছে মাদক সেবনের কারণে তার মৃত্যুহয়েছে। ময়নাতদন্তের পর প্রকৃত ঘটনা জানা যাবে। ঘটনায় থানায় মামলাদায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

নওগাঁ দর্পন
এই বিভাগের আরো খবর