মঙ্গলবার   ১৮ জুন ২০১৯   আষাঢ় ৫ ১৪২৬   ১৪ শাওয়াল ১৪৪০

নওগাঁ দর্পন
১০০

বড় অর্জন ইভিএমে ভোট ও সব দলের অংশগ্রহণ

প্রকাশিত: ৩০ ডিসেম্বর ২০১৮  

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন নানা কারণে আলোচনায় থাকবে। কারণ এ নির্বাচনে নতুন নতুন বৈশিষ্ট্য যোগ হয়েছে। এরমধ্যে বেশির ভাগ রাজনৈতিক দলের আপত্তির পরও যুক্ত করা হয়েছে আলোচিত ও বিতর্কিত ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম)। এছাড়া নিবন্ধিত ৩৯ রাজনৈতিক দলের বাইরে অনিবন্ধিত কিছু দল এ নির্বাচনে নিবন্ধিত দলের ব্যানারে নির্বাচনে অংশ নিয়ে নতুন মাত্রা যোগ করেছে, যা বিগত দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন পর্যন্ত ছিল অকল্পনীয়।

এছাড়া সেনাবাহিনী নির্বাচনে রাখা না রাখা নিয়ে যে ধোঁয়াশা ছিল সেটিও দূর করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। গত ২৪ ডিসেম্বর থেকে ৩৮৯ উপজেলায় সেনা ও ১৮ উপজেলায় নৌ-বাহিনীর সদস্যদের পাশাপাশি কোস্টগার্ড ও দায়িত্ব পালন করছে। তবে ব্যতিক্রমী বিদেশি পর্যবেক্ষকদের অংশগ্রহণ নিয়ে। অনেক দেশ ও সংস্থা নির্বাচনের পরিবেশ নিয়ে উদ্বেগ ও নানা বিতর্কিত ইসির সিদ্ধান্তের কারণে পর্যবেক্ষণ করা থেকে নিজেদের গুটিয়ে নিয়েছে। এর মধ্যে প্রভাবশালী রাষ্ট্র যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন (ইইউ) এই নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করা থেকে বিরত থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

এর আগে দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপিসহ অনেক দল বর্জন করায় ওই নির্বাচনে বিদেশী পর্যবেক্ষক সংস্থার কোন প্রতিনিধি পাঠায়নি সংশ্লিষ্ট দাতা দেশ ও সংস্থা। এর আগে আগে নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দেশী-বিদেশী পর্যবেক্ষকদের সরব উপস্থিতিতে ওই নির্বাচনটি সবাইর কাছে গ্রহণযোগ্য হয়েছিল। এদিক থেকে দশম জাতীয় সংসদের চেয়ে বেশি পর্যবেক্ষণ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নেয়ায় ওই নির্বাচন থেকে কিছুটা বৈশিষ্ট্যের দিক থেকে আলাদা ও স্বতন্ত্রতা বজায় থাকছে এ নির্বাচনের।

তবে বৈশিষ্ট্যের দিক থেকে সবচেয়ে ব্যতিক্রমী ইভিএমে ভোটগ্রহণ সম্পন্ন করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ। একটি আসনে মৃত্যুজনিতকারণে (গাইবান্ধা-৪ ঐক্যফ্রন্ট প্রার্থী টিআইএফজলে রাব্বী মিয়া) ওই আসনের নির্বাচন স্থগিত করেছে ইসি। আগামী ২৭ জানুয়ারি নতুন ভোট নেয়ার সময়সূচী ঘোষণা করা হয়েছে। বাকি ২৯৯ আসনে আজ ভোট হবে। এর মধ্যে ৬টি আসনে ইভিএমে ভোট হচ্ছে। আসনগুলো হচ্ছে- ঢাকা-৬, ঢাকা-১৩, চট্টগ্রাম-৯, রংপুর-৩, খুলনা-২ এবং সাতক্ষীরা-২ আসন। এসব আসনের ৮৪৫টি কেন্দ্রের ৫ হাজার ৩৮ ভোটকক্ষে এ মেশিন ব্যবহার করা হবে। এ ছয়টি আসনে ভোটার সংখ্যা ২১ লাখ ২২ হাজার। এর আগে গত বৃহস্পতিবার এসব আসনে মক ভোটিং অনুষ্ঠিত হয়।

বিরোধিতা স্বত্বেও নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার আগে আরপিও ধারা রাষ্ট্রপতির অধ্যাদেশ জারির মাধ্যমে এ প্রযুক্তির বৈধতা পায় ইসি। স্বল্প এ সময়ের ব্যবধানে ইভিএম জাতীয় নির্বাচনে ব্যবহারে সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে কে এম নুরুল হুদার কমিশনের একজন কমিশনার মাহবুব তালুকদার ‘নোট অব ডিসেন্ট’ দিয়ে সভা বয়কট করেন। তার যুক্তি ছিলো, তড়িঘড়ি সিদ্ধান্তের কারণে এটা সঠিকভাবে নির্বাচনে প্রয়োগ করা অসম্ভব হয়ে উঠবে। সে যাই হোক ওই কমিশনারের বিরোধিতা উপেক্ষা করে কমিশন যে সিদ্ধান্ত নিয়েছিল সংসদ নির্বাচনে প্রথম বারের মতো ইভিএমে ব্যবহারে এর সফল পরিসমাপ্তি ঘটবে আজ (৩০ ডিসেম্বর) ভোট অনুষ্ঠানের মাধ্যমে।

এদিক থেকে ইভিএম একাদশ জাতীয় নির্বাচনে অন্য নির্বাচন থেকে আলাদা বৈশিষ্ট্য বহন করছে বলে জানিয়েছেন নির্বাচন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাসহ বিশেষজ্ঞরা। স্থানীয় সরকার বিশেষজ্ঞ ড. তোফায়েল আহমেদ বলেন, ইভিএমে ভোট নেয়ার যে ঝুঁকি নিয়েছে ইসি সেটাকে সাধুবাদ জানায়। ভালোই ভালো এটার সফল প্রয়োগ ঘটবে। এই কমিশনের নাম ইতিহাসে নতুনভাবে লেখা হবে। সেদিক থেকে বলা যায়, এ নির্বাচনটি অন্য নির্বাচন থেকে ভিন্ন বৈশিষ্ট্য বহন করছে।

নওগাঁ দর্পন
নওগাঁ দর্পন
এই বিভাগের আরো খবর