রোববার   ০৫ এপ্রিল ২০২০   চৈত্র ২১ ১৪২৬   ১১ শা'বান ১৪৪১

নওগাঁ দর্পন

‘সতর্কতা অবলম্বন করে করোনা প্রতিরোধ করুন’

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ৪ এপ্রিল ২০২০  

নওগাঁ-৬ (আত্রাই-রাণীনগর) আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইসরাফিল আলম বলেছেন, আমরা নিজেরা যদি নিজ নিজ জায়গা থেকে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে সতর্ক না হই- তাহলে আমাদের সর্বনাশ আমরাই ডেকে আনব। কারণ এই করোনাভাইরাস যদি কাউকে স্পর্শ করে তাহলে শুধু ওই ব্যক্তিই মারা যাবে না পুরো ওই গ্রাম এমনকি ওই অঞ্চলটি মৃত্যুপুরীতে পরিণত হবে।

তাই আসুন, আমরা ঘরের বাইরে বের না হয়ে একটু কষ্ট হলেও তা মেনে নিয়ে নিজ নিজ জায়গা থেকে সতর্কতা অবলম্বন করে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে যুদ্ধ ঘোষণা করি। এই সংকট চলার সময়ে আপনাদের অভাবের কথা ঘরে ঘরে গিয়ে শোনা হবে এবং প্রয়োজনীয় খাবারসামগ্রীসহ অন্যান্য উপকরণ পৌঁছে দিয়ে আসা হবে।

সরকারের পাশাপাশি আমিসহ আমার লোকেরা রাণীনগর ও আত্রাই উপজেলার প্রতিটি কর্মহীন মানুষের ঘরে ঘরে গিয়ে আপনাদের খোঁজ নিয়ে সহযোগিতা দিয়ে আসব। শুধুমাত্র আপনারা ঘরে বসে আল্লাহর কাছে দোয়া করবেন যেন আমাদের দেশে এই ভাইরাস মহামারি আকার ধারণ না করে।

আমি প্রতিদিন আমার গাড়ির পেছনে খাবারের প্যাকেট নিয়ে দুই উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় দিন-রাত ঘুরছি আর কর্মহীন মানুষদের খুঁজে খুঁজে বের করে খাবার সামগ্রী হাতে তুলে দিচ্ছি। যেখান থেকে কর্মহীন মানুষদের ফোন ও খবর পাচ্ছি সেখানেই সঙ্গে সঙ্গে খাবার পৌঁছে দিচ্ছি।

যতদিন এই সংকট শিথিল না হচ্ছে, ততদিন আমি ফেরি করে আপনাদের ঘরে ঘরে গিয়ে প্রয়োজনীয় খাবারসামগ্রী পৌঁছে দিয়ে আসব শুধুমাত্র দয়া করে আপনারা কেউ জরুরি প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বাইরে বের হবেন না এবং কোন মোড়ে কিংবা বাজারে অযথা জটলা পাকাবেন না। তাই আসুন, এই ঘাতক ভাইরাসের হাত থেকে আমি নিজে বাঁচি, অন্যকেও বাঁচতে সহায়তা ও সতর্ক করি।

আত্রাই উপজেলা আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে শনিবার কর্মহীন, অসহায়, দিনমজুর, খেটে-খাওয়া ও হতদরিদ্র মানুষদের মাঝে খাবার সামগ্রী বিতরণকালে তিনি প্রধান অতিথি হিসেবে এই কথাগুলো বলেন।

তিনি আরো বলেন, সরকার করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় ভিজিএফ, ভিজিডি, ১০ টাকা কেজি চাল ও বিশেষ খাদ্য সহায়তা দিতে যে ব্যাপক ব্যবস্থা নিয়েছে তার সঠিক বাস্তবায়ন হলে কোনো মানুষই অভুক্ত থাকবে না। নির্বাচনের সময় যেভাবে আমি বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোট চেয়েছি, ঠিক সেইভাবেই আমার নেতৃত্বে স্বেচ্ছাসেবীদের মাধ্যমে কর্মহীন মানুষদের ঘরে ঘরে গিয়ে খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দিচ্ছি।

কারণ আল্লাহর পর আমি আত্রাই ও রাণীনগর উপজেলার মানুষদের অভিভাবক। আমার ভান্ডারে পর্যাপ্ত পরিমাণ খাবার মজুদ আছে। আপনারা ভয় পাবেন না। এছাড়াও এই খাবার বিতরণ নিয়ে কেউ কোন অনিয়ম করলে তার বিরুদ্ধে আমার আদালতে দৃষ্টান্তরমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করব। আপনারা করোনা মোকাবিলায় ঘরে বসে থাকুন, আতংকিত না হয়ে আপনি নিজে সচেতন হোন এবং আপনার আশেপাশের সবাইকে সচেতন হতে উদ্বুদ্ধ করুন।

সাংসদ ইসরাফিল আলমের নিজস্ব অর্থায়নে ও ইসরাফিল আলম ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে মানবিক খাদ্য সহায়তা কেন্দ্র থেকে প্রতিজন মানুষকে খাবার সামগ্রী হিসেবে ৫ কেজি চাল, দেড় কেজি আলু, ১ কেজি ডাল, ১ লিটার তেল, লবণ, পেঁয়াজ, রসুন, মরিচ, সাবানসহ অন্যান্য উপকরণ বিতরণ করা হয়।

এছাড়াও উপজেলার ৮টি ইউনিয়নের মেম্বার, চেয়ারম্যান, দলীয় নেকাকর্মীদের মাধ্যমে প্রকৃত কর্মহীন মানুষদের তালিকা করে খাবারসামগ্রী ঘরে ঘরে গিয়ে পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এবাদুর রহমান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নৃপেন্দ্রনাথ দুলাল, সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী গোলাম মোস্তফা বাদল, রাণীনগর উপজেলা যুবলীগের সভাপতি সিরাজুল ইসলাম চাঁদ, ভাইস চেয়ারম্যান শেখ হাফিজুল ইসলাম, আওয়ামী লীগ ও তার অঙ্গ সংগঠনের সকল নেতৃবৃন্দ।

স/এমএস

নওগাঁ দর্পন
এই বিভাগের আরো খবর