মঙ্গলবার   ২০ আগস্ট ২০১৯   ভাদ্র ৪ ১৪২৬   ১৮ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

নওগাঁ দর্পন
সর্বশেষ:
ঠাকুরগাঁওয়ে দুই বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে প্রাণ গেল ৮ জনের রাণীনগরে গোয়াল ঘরের তালা ভেঙ্গে কৃষকের ৫টি গরু চুরি পোরশায় বিদ্যুৎস্পৃষ্টে দুই বছরের শিশুর মৃত্যু রাণীনগরে মশক নিধন ও পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম উপলক্ষে র‍্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত নওগাঁয় তরুন তরুনীদের সম্মেলন অনুষ্ঠিত গনসচেতনতা সপ্তাহ উপলক্ষে নওগাঁ সদর মডেল থানা পুলিশের র‌্যালী সাপাহারে জনসচেতনতা সপ্তাহ উপলক্ষে র‌্যালী ও আলোচনা সভা রাণীনগরে গাঁজাসহ আটক ২ নওগাঁ ১১ জনের ডেঙ্গু সনাক্ত, ৮ জন চিকিৎসাধীন আত্রাই থানা পুলিশের সচেতনতা মূলক র‌্যালি অনুষ্ঠিত ধামইরহাটে গনসচেতনতা দিবস উপলক্ষে র‍্যালী অনুষ্ঠিত সাপাহারে জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে মশক নিধন লিফলেট বিতরণ ৬ দফা দাবিতে নওগাঁ প্রেসক্লাবে হেযবুত তওহীদের সংবাদ সম্মেলন মান্দায় ‘মাদক ও ইভটিজিং সচেতনতা কার্যক্রম’র আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত
৮৪

পুষ্টিকর ডিম কোনটি? না চিনলে আজই চিনে নিন!

ডেস্ক নিউজ

প্রকাশিত: ১৪ জুলাই ২০১৯  

খাবারের মধ্যে ডিমকে আদর্শ প্রোটিন বলা হয়। কারণ মানবদেহের জন্য জরুরি সব প্রোটিন সঠিক মাত্রায় ডিমে বিদ্যমান থাকে। তাই রোগীকেও ডিম খাওয়ার উপদেশ দেন চিকিৎসকরা। তাছাড়া সকাল, দুপুর বা রাতের প্রাত্যহিক খাবার থেকে শুরু করে বিভিন্ন মুখরোচক খাবার তৈরিতে ডিমের ব্যবহার অতুলনীয়। তবে ডিম খেলেই শুধু হবে না। ডিমটি যদি উৎকৃষ্ট মানের না হয়, তাহলে ডিম খাবার পরও এর পুষ্টিগুণ থেকে বঞ্চিত হতে হবে। তাই অধিক পুষ্টিগুণসম্পন্ন ডিম কোনটি টা জানতে হবে। সাম্প্রতিক গবেষণা জানাচ্ছে, কুসুমের রং দেখেই আপনি জেনে নিতে পারবেন অধিক পুষ্টি রয়েছে কোন ডিমে। চলুন জেনে নেয়া যাক তবে পুষ্টিগুণসম্পন্ন ডিম কোনটি-  

জীবনধারাবিষয়ক ওয়েবসাইট  টিপস অ্যান্ড ট্রিকসের এক ফিচারে প্রকাশ, সাধারণত যে ডিমের কুসুমের রং কমলা রঙের এবং কুসুমটি যথেষ্ট গোল, সেই ডিমটি সবচেয়ে বেশি পুষ্টিকর। ছবিতে দেয়া তিনটি কুসুমের মধ্যে প্রথম ডিমটির কুসুম গবেষকদের এ দুটি শর্তই পূরণ করে। তাই ছবির দ্বিতীয় ও তৃতীয় ডিমের তুলনায় প্রথম ডিমটির পুষ্টির মাত্রা বেশি এবং তা খেতেও অন্য দুটি ডিম থেকে সুস্বাদু।  

গবেষকরা আরো জানান, সাধারণত বেশির ভাগ ডিম দেয়া মুরগি থাকে অন্ধকার খাঁচায়। ফলে সূর্যের আলো এবং বিচরণের জায়গার অভাব রয়ে যায়। এর প্রভাব পড়ে ডিমের পুষ্টিগুণে। কমে যায় ডিমের পুষ্টিগুণ। পরিবর্তন আসে কুসুমের রঙে। অন্যদিকে কিছু মুরগি যথেষ্ট আলো-বাতাস এবং বিচরণের জন্য প্রচুর জায়গা পায়। ফলে তারা আলোহীন খাঁচায় থাকা মুরগির তুলনায় বেশ স্বাস্থ্যকর হয়ে বেড়ে ওঠে। কৃত্রিম উপায়ের পরিবর্তে তারা ডিম পাড়ে স্বাভাবিক প্রক্রিয়ায়। ফলে তাদের ডিমের কুসুমের রং হয় কমলা বর্ণের এবং এ ধরনের মুরগির ডিম স্বাস্থ্যকর হওয়ার পাশাপাশি সুস্বাদু হওয়ার সম্ভাবনাও বেড়ে যায়।

নওগাঁ দর্পন
নওগাঁ দর্পন