সোমবার   ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আশ্বিন ১ ১৪২৬   ১৬ মুহররম ১৪৪১

নওগাঁ দর্পন
সর্বশেষ:
পত্নীতলায় আদিবাসী প্রেমিক যুগলের লাশ উদ্ধার চাকুরির প্রলোভনে মান্দার মেয়েকে ঢাকায় ধর্ষণ বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বহরে যুক্ত হওয়া বোয়িং (৭৮৭-৮) ড্রিমলাইনার গাঙচিল উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ধামইরহাটে মাদক সেবনের দায়ে ৬ জনের জেল ও জরিমানা আত্রাইয়ে ডেঙ্গু সচেতনতা মূলক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় সাপাহারে পরিস্কার অভিযান সাপাহার ঐতিহ্যবাহী জবই বিলে মাছের পোনা অবমুক্ত আত্রাই থানা পুলিশের অভিযানে ৯জন আটক গ্রেনেড হামলার প্রতিবাদে নিয়ামতপুরে আলোচনা সভা সাপাহারের করল্যা চাষে বিপ্লব
৯৭

পত্নীতলায় সড়কে চাঁদাবাজির অভিযোগ, প্রশাসনের ভুমিকা নিয়ে প্রশ্ন

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৮ আগস্ট ২০১৯  

নওগাঁর পত্নীতলায় নজিপুর পৌরসভার নাম ব্যবহার করে ভুয়া রশিদ দিয়ে যানবাহন থেকে চাঁদাবাজির অভিযোগ পাওয়া গেছে ইজারাদার সাইদুল ইসলামের বিরুদ্ধে। তিনি নজিপুর জিরো পয়েন্ট টেম্পু, ভটভটি ও ইজিবাইক স্ট্যান্ডে ইজারাদার। নজিপুর সদর স্ট্যান্ডে চারপার্শ্বে ও ঠুকনিপাড়া মোড়ে ভূয়া রশিদ দিয়ে পণ্যবাহী ট্রাক, পিকাপ, টাক্কর, ট্রলিসহ বিভিন্ন ধরনের যানবাহনে ৫০ থেকে সর্বোচ্চ ২০০ টাকা করে চাঁদা আদায় করছে সাইদুলের লোকজন।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, নজিপুর জিরো পয়েন্ট সংলগ্ন টেম্পু ও ইজিবাইক স্ট্যান্ডের ইজারা পান সাইদুল ইসলাম। নিয়ম অনুযায়ী প্রতিটি টেম্পু ও ইজিবাইক থেকে তিনি পৌরসভার কর্তৃক নির্ধারিত ১৫ টাকা হারে দিনে একবার টোল আদায় করতে পারবেন। কিন্তু ইজিবাইক স্ট্যান্ডের বাইরে জিরোপয়েন্ট এবং দেড় কিলোমিটার দূরে ঠুকনিপাড়া মোড়ে তার লোকজন দিয়ে বিভিন্ন ধরনের যানবাহন থেকে অবৈধভাবে চাঁদাবাজি করছেন। অবৈধভাবে চাঁদাবাজির রশিদে নজিপুর পৌরসভার নাম ও লোগো থাকলেও নেই ইজারাদারের নাম। ওই রসিদ দিয়েই সাইদুলের লোকজন বড় ট্রাক থেকে ২০০টাকা, মাঝারি ট্রাক থেকে ১০০টাকা, ছোট ট্রাক থেকে ৭০টাকা, মাইক্রোবাস থেকে ৫০টাকা,ইজিবাইক ৫০ টাকা হারে টোল আদায় করে। কোন পরিবহন এই টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে সাইদুলের বাহিনী ট্রাক আটকে রেখে মালপত্র নেমে নেয় এবং চালককে নানাভাবে হয়রানি করে। সাইদুলের পক্ষে এই চাঁদা তোলে তার সহযোগী মোকলেজ,সিদ্দিক, নূরুল ইসলামসহ আট-দশজন।

শরিফুল ইসলাম নামে এক ট্রাক চালক বলেন, টাকা না দিলে ইজারাদারের লোকজন গাড়ি আটকে রাখে। অনেক সময় মালপত্র নামিয়ে নিয়ে যায়। তাই বাধ্য হয়েই টাকা দিয়ে চলে যাই। আশরাফুল নামে আরেক ট্রাক চালক বলেন, পৌরসভার নামে রসিদ দেয়,তাই টাকা দিয়ে চলে যাই। ভুয়া রসিদে টাকা আদায় করলেও পুলিশ কিছু বলেনা। কারন তারাও ভাগ পায়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ইজারাদার সাইদুল ইসলাম বলেন, আমি ২৪ লাখ টাকা দিয়ে পৌরসভার সব কয়টি টেম্পু, ভটভটি, ইজিবাইক ও অটোর্চাজার স্ট্যান্ড এক বছরের জন্য ইজারা নিয়েছি। কিছু বলতে হলে পৌরসভার মেয়রকে বলেন।

এ বিষয়ে নজিপুর পৌরসভার মেয়র রেজাউল কবির চৌধুরী বলেন, পৌরসভা থেকে ইজারাদারকে ছোট পরিবহন যেমন-ইজিবাইক, টেম্পু থেকে টোল নেওয়ার অথরিটি দেওয়া হয়েছে,এর বাইরে নয়। বিষয়টি আমাদের নজরে এসেছে। ইজারাদারকে ডেকে এবিষয়ে সর্তক করা হয়েছে। এরপর ট্রাক,পিকাপসহ অন্যান্য যানবাহনে চাঁদা তুলা হলে ইজারাদারের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

পত্নীতলা সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ভারপ্রাপ্ত) আবু সালেহ মো. আশরাফুল আলম বলেন, চাঁদাবাজের কোন পরিচয় থাকেনা। যারা যানবাহনে চাঁদাবজি করছে তাদের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

নওগাঁ দর্পন
নওগাঁ দর্পন
এই বিভাগের আরো খবর