মঙ্গলবার   ০২ জুন ২০২০   জ্যৈষ্ঠ ১৮ ১৪২৭   ১০ শাওয়াল ১৪৪১

নওগাঁ দর্পন
৩৮

ধামইরহাটে জীবন ঝুঁকি নিয়ে সাপ্তাহিক হাটবাজারে ক্রেতা বিক্রেতা

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১২ এপ্রিল ২০২০  

 

ব্যাপক প্রচার করার পরও ধামইরহাটে সাপ্তাহিক হাট বসে। কিন্তু কয়েক ঘন্টা পর পুলিশ পরে ভেঙ্গে দিয়েছে। পুরো হাট না বসলেও অনেক লোক সমাগম ঘটে। সামাজিক দূরত্ব বজায় না থাকায় পরিস্থিতি খারাপ হওয়ার আশংকা দেখছেন স্বাস্থ্য বিভাগ।

জানা গেছে, রবিবার ধামইরহাটের সর্ববৃহৎ সাপ্তাহিক হাটবার। এ হাটে প্রচুর লোক সমাগম ঘটে। ধামইরহাট পৌরসভার অধীনে এ হাট চলে। এবার পৌর কর্তৃপক্ষ নিজে খাস টোল আদায় করছেন। গত শনিবার আজকের (গতকাল) রবিবারের হাট বসবে না মর্মে পৌর কর্তৃপক্ষ মাইকিং করে জনগণকে জানিয়ে দেয়।। কিন্তু কে শোনে কার কথা।

রবিবার সকাল থেকে যথারীতি হাট বসে। তবে প্রশাসনের নজরদারী ছিল। হাটে কাঁচামালের দোকান বেশি বসে। এছাড়া দুটি গরু গবাহ এবং মাছও ওঠে। লোকজন সামাজিক দূরত্ব বজায় না রেখে কেনাকাটা করেছে। সকাল সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলা নির্বাহী অফিসার,পৌরসভার মেয়র এবং ধামইরহাট থানার অফিসার ইনচার্জ এর নেতৃত্বে পুলিশ বাহিনী হাট ভেঙ্গে দেয়। এদিকে প্রশাসনের এ অভিযানকে স্বাগত জানিয়েছেন।

ধামইরহাট পৌরসভার মেয়র মো.আমিনুর রহমান বলেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে এ অঞ্চলের সর্ববৃহৎ এ হাট যেন না বসে সে ব্যাপারে জনগণকে সচেতন করার জন্য ব্যাপক মাইকিং করা হয়। তারপরও কাঁচামালের দোকান বসেছে জানতে পেয়ে হাট ভেঙ্গে দেয়া হয়।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা.স্বপন কুমার বিশ্বাস বলেন, এই মূর্হুতে সবচেয়ে জরুরী সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করা। কোনক্রমে জনসমাবেশ করা যাবে না।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার গণপতি রায় বলেন, কাঁচামাল, হাট ভেঙ্গে দেয়া মুখ্য বিষয় নয়। কোথায়ও এক জায়গায় অনেক লোক জমায়েত করা যাবে না। কাঁচা বাজার বসলেও লোক সমাগম বেশি হওয়াতে পুলিশ বাহিনীর সহায়তা তা ভেঙ্গে দেয়া হয়েছে। সরকারি নির্দেশ সকলকে মানতে হবে। 

স/মা

নওগাঁ দর্পন
এই বিভাগের আরো খবর