শনিবার   ২৪ আগস্ট ২০১৯   ভাদ্র ৯ ১৪২৬   ২২ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

নওগাঁ দর্পন
সর্বশেষ:
চাকুরির প্রলোভনে মান্দার মেয়েকে ঢাকায় ধর্ষণ বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বহরে যুক্ত হওয়া বোয়িং (৭৮৭-৮) ড্রিমলাইনার গাঙচিল উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ধামইরহাটে মাদক সেবনের দায়ে ৬ জনের জেল ও জরিমানা আত্রাইয়ে ডেঙ্গু সচেতনতা মূলক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় সাপাহারে পরিস্কার অভিযান সাপাহার ঐতিহ্যবাহী জবই বিলে মাছের পোনা অবমুক্ত আত্রাই থানা পুলিশের অভিযানে ৯জন আটক গ্রেনেড হামলার প্রতিবাদে নিয়ামতপুরে আলোচনা সভা সাপাহারের করল্যা চাষে বিপ্লব
১৫১

ধানের নায্যমূল্যের দাবিতে অবস্থান কর্মসূচি

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৬ মে ২০১৯  

সরকার ঘোষিত মূল্যে কৃষকদের কাছ থেকে সরাসরি ধান ক্রয়ের দাবিতে নওগাঁর মহাদেবপুরে অবস্থান কর্মসূচি পালিত হয়েছে। সমাজতান্ত্রিক ক্ষেতমজুর সংগ্রাম পরিষদের উদ্যোগে উপজেলা খাদ্য অফিসের সামনে এ অবস্থান কর্মসূচি পালিত হয়।

নওগাঁ জেলা বাসদের সমন্বয়ক জয়নাল আবেদিন মুকুলের সভাপতিত্বে অবস্থান কর্মসূচি চলাকালে বক্তব্য রাখেন, জেলা বাসদের সদস্য কালিপদ রায়, মঙ্গল কিস্কু, কৃষক আব্দুস সালাম, রাজীব দাস প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, প্রান্তিক কৃষকের গোলার ধান শেষ হয়ে যাচ্ছে। অথচ সরকার এখনও ধান ক্রয় প্রক্রিয়া শুরু করেনি। সরকার মোটা জাতের প্রতি মণ ধানের দাম ১ হাজার ৪০ টাকা বেধে দিলেও বাজারে তা বিক্রি হচ্ছে ৬০০ থেকে ৭০০ টাকায়। এতে প্রতি মণ ধানে কৃষকের ক্ষতি হচ্ছে ৩০০ থেকে ৪০০ টাকা।

জয়নাল আবেদিন বলেন, ‘দেশে যে কৃষি নীতি চলছে, তা কৃষকের নীতি নয়। তাঁর কারণ সরকার ১২ লাখ মেট্রিক টন চাল কিনছেন আর ধান কিনছেন মাত্র দেড়শ মেট্রিক টন। ১২লাখ মেট্রিক টন চাল কিনে সরাসরি কৃষকদের কাছ থেকে ধান কিনতে পারতেন। সরকার প্রতি কেজি ধানের দাম ২৬ টাকা নির্ধারণ করে ধান কেনার ঘোষণা দিয়েছে। সে হিসেবে এক মণ ধানের দাম হয় ১ হাজার ৪০ টাকা। ক্ষুদ্র কৃষক ও বর্গা চাষিদের গোলার ধান শেষ হয়ে যাচ্ছে, অথচ সরকার এখনও ধান ক্রয় প্রক্রিয়া শুরুই করে নাই।’

তিনি আরও বলেন, অতি সত্বর মৌসুমের শুরুতেই সরকারের দেশের ইউনিয়ন পর্যায়ে ক্রয়কেন্দ্র খুলে কৃষকদের কাছ থেকে ধান ক্রয় করা। ধান ক্রয়ের বরাদ্দ বাড়িয়ে অন্তত ১২ লাখ মেট্রিক টন করা উচিত।

নওগাঁ দর্পন
নওগাঁ দর্পন
এই বিভাগের আরো খবর