সোমবার   ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আশ্বিন ১ ১৪২৬   ১৬ মুহররম ১৪৪১

নওগাঁ দর্পন
সর্বশেষ:
পত্নীতলায় আদিবাসী প্রেমিক যুগলের লাশ উদ্ধার চাকুরির প্রলোভনে মান্দার মেয়েকে ঢাকায় ধর্ষণ বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বহরে যুক্ত হওয়া বোয়িং (৭৮৭-৮) ড্রিমলাইনার গাঙচিল উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ধামইরহাটে মাদক সেবনের দায়ে ৬ জনের জেল ও জরিমানা আত্রাইয়ে ডেঙ্গু সচেতনতা মূলক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় সাপাহারে পরিস্কার অভিযান সাপাহার ঐতিহ্যবাহী জবই বিলে মাছের পোনা অবমুক্ত আত্রাই থানা পুলিশের অভিযানে ৯জন আটক গ্রেনেড হামলার প্রতিবাদে নিয়ামতপুরে আলোচনা সভা সাপাহারের করল্যা চাষে বিপ্লব
৫১

চলে গেলেন কথাসাহিত্যিক রিজিয়া রহমান

ডেস্ক নিউজ

প্রকাশিত: ১৬ আগস্ট ২০১৯  

একুশে পদকপ্রাপ্ত কথাসাহিত্যিক রিজিয়া রহমান আর নেই (ইন্না লিল্লাহি...রাজিউন)।

শুক্রবার বেলা সোয়া ১১টার দিকে রাজধানীর অ্যাপোলো হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন তিনি। 

ষাটের দশকে গল্প, কবিতা, প্রবন্ধ, রম্যরচনা ও শিশুসাহিত্যে বিচরণ শুরু করেন ৮০ বছর বয়সে মারা যাওয়া রিজিয়া রহমান।

রিজিয়া রহমানের একমাত্র ছেলে আবদুর রহমান তার মায়ের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

১৯৩৯ সালের ২৮ ডিসেম্বর ভারতের কোলকাতার ভবানীপুরে জন্মগ্রহণ করেন রিজিয়া রহমান। ১৯৪৭ সালের দেশবিভাগের পর পরিবারের সঙ্গে বাংলাদেশে চলে আসেন তিনি।

শৈশব থেকে বিভিন্ন পত্রিকায় তার কবিতা ও গল্প ছাপা হলেও তার প্রথম গল্পগ্রন্থ অগ্নিস্বাক্ষরা ১৯৬৭ সালে প্রকাশিত হয়।

রিজিয়া রহমানের উল্লেখযোগ্য উপন্যাসগুলো হলো- ঘর ভাঙা ঘর, উত্তর পুরুষ, রক্তের অক্ষর, বং থেকে বাংলা। লিখেছেন অভিবাসী আমি ও নদী নিরবধি নামে দুটি আত্মজীবনী।

উপন্যাসে অবদানের জন্য এই কথাসাহিত্যিক ১৯৭৮ সালে বাংলা একাডেমি পুরস্কার লাভ করেন। চলতি বছর একুশে পদক পান তিনি।

পারিবারিক জীবনে রিজিয়া রহমান মীজানুর রহমানের সহধর্মিণী। মীজানুর রহমান ছিলেন একজন খনিজ ভূতত্ববিদ। তাদের একমাত্র ছেলে আব্দুর রহমান।

নওগাঁ দর্পন
নওগাঁ দর্পন
এই বিভাগের আরো খবর