সোমবার   ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০   ফাল্গুন ৪ ১৪২৬   ২২ জমাদিউস সানি ১৪৪১

নওগাঁ দর্পন
১৬৩৯

চলুন জেনে নিই জুম্মার দিনের সুন্নাত ও করণীয় কাজসমূহ

প্রকাশিত: ৯ নভেম্বর ২০১৮  

জুম্মার দিনে  নিম্নলিখিতি সুন্নাত গুলো আদায় করতে সচেষ্ট হন : !!►►

১) ফজরের সালাত জামাতে আদায় করুন (আল-বায়হাকী , সহী আল-আলবানি, ১১১৯)

২) সালাত আল-জুম্মার পূর্বের এবং পরের করণীয় ঃ-

➲ জুম্মার দিন গোসল করা (বুখারী এবং মুসলিম : # ১৯৫১ এবং # ৯৭৭)

➲ জুম্মার সালাতে শীঘ্র উপস্থিত হওয়া (বুখারী এবং মুসলিম : # ৯২৯ এবং ১৯৬৪)

➲ পায়ে হেঁটে মসজিদে গমন করা (আল-তিরমিজি, ৪৯৬)

➲ মনোযোগ সহকারে জুম্মার খুৎবা শোনা (আল-বুখারী ৯৩৪ এবং মুসলিম ৮৫১)

৩) জুম্মার দিন আপনার দুয়া কবুল হবার সেই মুহূর্তটির অনুসন্ধান করুন (বুখারী এবং মুসলিম : # ৯৩৫ এবং # ১৯৬৯)

৪) সূরা কাহাফ তিলাওয়াত (আল-হাকিম, ২/৩৯৯; আল-বায়হাকী, ৩/২৪৯)

৫) আমাদের নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উপর দুরদ পাঠ (ইবনে মাজাহ # ১০৮৫ , আবু দাউদ , # ১০৪৭)

জুম্মার দিনে কিছু করণীয় কাজ নিচে দেয়া হলো:

১, ফজরের আগে গোসল করা।

২, ফজরের ফরজ নামাজ়ে সূরা সাজদা [সিজদা] ও সূরা দাহর/ইনসান তিলাওয়াত করা।

৩, উত্তম পোষাক পরিধান করা।

৪, সুগন্ধি লাগানো।

৫, প্রথম ওয়াক্তে মসজিদে যাওয়া।

৬, সূরা কাহফ তিলাওয়াত করা।

৭, মসজিদে গিয়ে কমপক্ষে দুই রাকা’আত সুন্নত আদায় করা।

৮, ইমামের কাছাকাছি গিয়ে বসা।

৯, মনযোগ দিয়ে খুৎবাহ শোনা। খুৎবাহ চলাকালীন সময়ে কোন ধরনের কোন কথা না বলা; এমনকি কাউকে কথা বলতে দেখলে তাকে কথা বলতে বারণ করাও কথা বলার শামিল।

১০, দুই খুৎবাহর মাঝের সময়ে দু’আ করা।

১১, অন্য সময়ে দু’আ করা। কারণ এদিন দু’আ কবুল হয়।

১৩, রসূলের উপর সারাদিন বেশী বেশী দরূদ পাঠানো।

জুমু’আর দিনের পাঁচটি বৈশিষ্ট্য:

১, এই দিনে আদম (আ:)-কে সৃষ্টি করা হয়েছে।

২, এই দিনে আল্লাহ্ তা’আলা আদম (আ:)-কে দুনিয়াতে নামিয়ে দিয়েছেন।

৩, এই দিনে আদম (আ:) মৃত্যুবরণ করেছেন।

৪, এই দিনে এমন একটি সময় রয়েছে, যে সময়ে হারাম ছাড়া যে কোন জিনিস প্রার্থনা করলে আল্লাহ তা প্রদান করেন।

৫, এই দিনে কিয়ামত সংঘটিত হবে। তাই আসমান, যমীন ও আল্লাহর সকল নৈকট্যশীল ফেরেশতা জুমু’আর দিনকে ভয় করে।

(ইবনে মাজাহ্, মুসনাদে আহমদ)

নওগাঁ দর্পন