ব্রেকিং:
নওগাঁর মহাদেবপুরে বিএনপির সম্মেলনে দু’গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ১০, আটক ৫

মঙ্গলবার   ১০ ডিসেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ২৬ ১৪২৬   ১২ রবিউস সানি ১৪৪১

নওগাঁ দর্পন
সর্বশেষ:
আবরার ফাহাদ হত্যার ঘটনায় বুয়েটের ২৬ জন শিক্ষার্থীকে স্থায়ী বহিষ্কার ও ৬ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে শাস্তি দিয়েছে বুয়েটে প্রশাসন
৭৩৪

খাদ্যমন্ত্রীর জামাইয়ের মৃত্যুতে শোকের মাতম,

প্রকাশিত: ২১ মার্চ ২০১৯  

খাদ্যমন্ত্রীর জামাইয়ের মৃত্যুতে শোকের মাতম, অন্যদিকে কুচক্রী মহলের পাঁয়তারা
খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদারকে সততার অনন্য উচ্চতার সিঁড়ি থেকে নামাতে মরিয়া হয়ে আছে কিছু মাফিয়া গ্রুপ। তাঁকে ক্ষতিগ্রস্থ করছে তাঁর ব্যক্তিগত, পরিবারিক, রাজনৈতিক ও সামাজিক জীবনকে। খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদারের সততা, দক্ষতা, অভিজ্ঞতা আর মান-সম্মানকে নষ্ট করার জন্য অতিউৎসাহীরা অন্যায়ভাবে দোষারূপের আঙ্গুল তুলছেন তাঁর ডাক্তার মেয়ের প্রতি।
সহজ সরল হাস্যোজ্জল সুখী দম্পত্তি। ডাক্তার রাজন কর্মকার আর ডাক্তার কৃষ্ণা মজুমদার। কর্মময় জীবনের একই বৃন্তে কর্মরত দু’জন। পেশায় কর্মরত দুইজন। দক্ষ এবং যথেষ্ট পেশাদারীত্বের সুনামের ছাপ রয়েছে দুজনেরই । কর্মজীবন আর সামাজিক জীবন মিলিয়ে তাদের ভালবাসার কমতি ছিলো বলার কোনো সুযোগ নেই। হাজার হাজার হাস্যোজ্জল আর বাসাবাড়ি, আত্নীয়-স্বজনসহ বিভিন্নস্থানে থরে থরে সাজানো ভালবাসাপূর্ন ছবিই বলে দেয় কতটা বোঝাপড়ার আর সাজানো গোছানো ছিলো তাদের ব্যক্তিগত, পারিবারিক জীবনের রঙিন পৃথিবীটা।
গত শনিবার রাত ৩টায় হঠাৎ করেই খাদ্যমন্ত্রীর মেয়ে কৃষ্ণা মজুমদারের জামাতা ডাক্তার রাজন কর্মকার হৃদরোগে আক্রান্ত হলে তাকে সাথে সাথে রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক প্রয়োজনীয় পরীক্ষা নিরীক্ষা শেষে তাকে মৃত ঘোষণা করেন এবং মৃত্যুর কারণ হিসেবে হৃদরোগের কথা উল্লেখ করেছেন কর্তব্যরত চিকিৎসক।
 স্কয়ার হাসপাতালের ইমার্জেন্সি বিভাগের দায়িত্বরত চিকিৎসক ডা. আসাদ বলেন, ‘রবিবার ভোররাত ৩টা ৪৫ মিনিটে রাজন কর্মকারকে তার পরিবার হাসপাতালে নিয়ে আসে। তবে হাসপাতালে আনার আগেই তার মৃত্যু হয়। হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মৃত্যু হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে আমাদের ধারণা। তার শরীরে কোনো আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি।
অথচ ডাক্তার রাজনের মৃত্যুর পর স্ত্রী কৃষ্ণা মজুমদারের স্বামী হারানোর শোকের উপরেই চাপিয়ে দেয়া হচ্ছে স্বামী হত্যার মত অন্যায় অভিযোগ। রাজনের জীবন যাপনে দাম্পত্য কলহের গুরুতর কোন ঘটনা ছিলনা। কোন সূত্র বা ভিত্তি ছাড়াই কলহ আর হত্যার অভিযোগের আঙ্গুল তুলছে একটি কুচক্রী বিশেষ সিন্ডিকেট মহল।
সাধু সাবধান আইনশৃংখলা বাহিনীসহ বিভিন্নসূত্র ইতিমধ্যে ওই সকল সিন্ডিকেটের সদস্য, তাদের সাথে আতাতকারী ডাক্তার গ্রুপ এবং অন্যান্য স্বার্থান্বেষীদের তালিকা তৈরি করছে। যারা এই ঘটনাকে ভিন্ন স্বার্থে ব্যবহারের চেস্টা করছে তাদের বিরুদ্ধে কঠিনতর ব্যবস্থা গ্রহণের প্রস্তুতি চলছে। সুন্দর আগামীর জন্য দুর্নীতিমুক্ত সমাজ গঠনে ওই সকল কুচক্রী ও বিশেষ সিন্ডিকেটকারীদের অন্যায়ের হাতকে গলাটিপে ধ্বংস ও ধুলিষ্যাত করে দেয়ার মানবিক আবেদনও রয়েছে সমাজ সচেতন বিশ্লেষকদের।

নওগাঁ দর্পন
নওগাঁ দর্পন
এই বিভাগের আরো খবর