রোববার   ১৮ আগস্ট ২০১৯   ভাদ্র ২ ১৪২৬   ১৬ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

নওগাঁ দর্পন
সর্বশেষ:
ঠাকুরগাঁওয়ে দুই বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে প্রাণ গেল ৮ জনের রাণীনগরে গোয়াল ঘরের তালা ভেঙ্গে কৃষকের ৫টি গরু চুরি পোরশায় বিদ্যুৎস্পৃষ্টে দুই বছরের শিশুর মৃত্যু রাণীনগরে মশক নিধন ও পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম উপলক্ষে র‍্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত নওগাঁয় তরুন তরুনীদের সম্মেলন অনুষ্ঠিত গনসচেতনতা সপ্তাহ উপলক্ষে নওগাঁ সদর মডেল থানা পুলিশের র‌্যালী সাপাহারে জনসচেতনতা সপ্তাহ উপলক্ষে র‌্যালী ও আলোচনা সভা রাণীনগরে গাঁজাসহ আটক ২ নওগাঁ ১১ জনের ডেঙ্গু সনাক্ত, ৮ জন চিকিৎসাধীন আত্রাই থানা পুলিশের সচেতনতা মূলক র‌্যালি অনুষ্ঠিত ধামইরহাটে গনসচেতনতা দিবস উপলক্ষে র‍্যালী অনুষ্ঠিত সাপাহারে জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে মশক নিধন লিফলেট বিতরণ ৬ দফা দাবিতে নওগাঁ প্রেসক্লাবে হেযবুত তওহীদের সংবাদ সম্মেলন মান্দায় ‘মাদক ও ইভটিজিং সচেতনতা কার্যক্রম’র আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত
৩৩

অভাবে কান্না করা মেয়েটি এখন পুরুষের স্বপ্নের নায়িকা

ডেস্ক নিউজ

প্রকাশিত: ৭ আগস্ট ২০১৯  

খুব যে অভাবী ঘরে জন্মেছেন তা কিন্তু নয়। মধ্যবিত্ত পরিবারেই জন্ম ও মানুষ। শিক্ষাও পেয়েছেন ভালো। নিজের কর্ম জীবনটাও শুরু করতে পেরেছিলেন বেশ চমৎকার সম্ভাবনা নিয়ে। তবুও তাকে অভাবের দিন পার করতে হয়েছে। হতাশায় কাঁদতে হয়েছে দিনে রাতে।

বলছি বলিউড অভিনেত্রী পরিণীতি চোপড়ার কথা। ২০১৩ সালেই তার সিনেমার অভিষেক। পরপর বেশ কয়টি সিনেমায় নাম লেখান তিনি।

প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার বোন হিসেবে পরিচিতিটা পেয়েছিলেন দ্রুত। যশ রাজ চোপড়ার প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানে কাজ করার অভিজ্ঞতা তাকে সহজ করে দিয়েছিলো সিনেমায় ভালো করার।

তবু কিছু ভুল সিদ্ধান্ত তাকে ব্যাকফুটে নিয়ে গিয়েছিলো। ফেলে দিয়েছিলো অনিশ্চিত জীবনের মুখে। পরিণীতির ভাষায়, ‘২০১৪ সালের শেষ থেকে গোটা ২০১৫ সাল। খুব খারাপ কেটেছিল আমার জীবনে। আমার দুটি ছবি কিল দিল এবং দাওয়াত-ই-ইশক একেবারেই কাজ করেনি।

হঠাৎ করেই দেখলাম হাতে টাকা নেই। তখন একে তো প্রেম ভাঙার যন্ত্রণা, অন্যদিকে নিজের বাড়ি কেনায় অনেক টাকা চলে গিয়েছিল। জীবনে পজিটিভ কিছুই ছিল না যেন। খাওয়া দাওয়া বন্ধ করে দিয়েছিলাম। কারও সঙ্গে কথা বলতাম না, দেখা করতাম না। সারাদিন নিজেকে ঘরে বন্দি করে কাঁদতাম।

মন ভাল করতে নিজেই নিজের সাথে কথা বলতাম। টিভি দেখতাম, ঘুমাতাম... জম্বির মতো হয়ে গিয়েছিলাম যেন। ফিল্মি ডিপ্রেসড মেয়ের মতো হয়ে গিয়েছিলাম। বারবার অসুখে পড়ছিলাম। ৬ মাস মিডিয়ার থেকে নিজেকে এক্কেবারে দূরে রেখেছিলাম। দিনে অন্তত ১০ বার কাঁদতাম।’

তবে সময়ের চাকা ঘুরতে বেশি সময় লাগেনি পরিণীতির। ২০১৬ থেকে নিজেকে আমূল বদলে নেন এই নায়িকা। রূপ আর গ্ল্যামারে মাতিয়ে রেখেছেন হিন্দি সিনেমার রঙিন দুনিয়া। কোটি পুরুষের কাছে আরাধ্য এখন পরিণীতি, স্বপ্নের নায়িকাও। অনেক নায়কই একজন ভালো অভিনেত্রী হিসেবে পরিণীতির জুটি হতে অপেক্ষায় থাকেন।

সর্বশেষ অক্ষয় কুমারের সঙ্গে ‘খেসারি’ চলচ্চিত্র দিয়ে সাফল্য পেয়েছেন তিনি। হাতে আছে আরও বেশ কিছু চলচ্চিত্র। সেগুলোও তার ক্যারিয়ারে বসন্তের হাওয়া দেবে বলে প্রত্যাশা করেন তিনি।

নওগাঁ দর্পন
নওগাঁ দর্পন
এই বিভাগের আরো খবর